পেঁয়াজের দাম অগ্নিমূল্য় হওয়ার জন্য় নাজেহাল শহরবাসী। আর এই পরিস্থিতি থেকে মানুষকে মুক্তি দিতেই হঠাৎই যদুবাবুর বাজার পরিদর্শনে গিয়েছিলেন রাজ্য়ের মুখ্য়মন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। সেখানে গিয়ে তিনি পেঁয়াজ বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলেন। আর পেঁয়াজের দাম কমানোর কড়া নির্দেশ দেন।  আর ২৪ ঘন্টা কাটতে না কাটতেই যদুবাবুর বাজারে, পেঁয়াজের দাম কমল ম্য়াজিকের মত।

আরও পড়ুন, পশ্চিমি ঝঞ্ঝার জন্য়ই আটকে শীত, তবু আশা হারায়নি কলকাতাবাসী

যদুবাবুর বাজারে যে পেঁয়াজের দাম ছিল ১৫০ টাকা থেকে ১৬০টাকা। সেই দাম নেমে দাড়াল ১২০ টাকা থেকে ১৩০টাকায়। পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির কারণ নিয়ে  রাজ্য়ের মুখ্য়মন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায় যদুবাবুর বাজার পরিদর্শনে গিয়েছিলেন। তিনি সরাসরি বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলেন। কোথা থেকে এই পেঁয়াজ আসছে, পাইকাড়ী কত দামে তাঁরা কিনে আনছেন। তাঁরপর তিনি কড়া নির্দেশ দিয়েছিলেন, যাতে পেঁয়াজের দাম ১০০ টাকা নীচে নেমে আসে। আর সেই নির্দেশেই রাতারাতি দাম পেঁয়াজের দাম কমল, যদুবাবুর বাজারে। 

আরও পড়ুন, রাজ্য চলছে গরুর স্পিডে - রাজ্যপাল রকেটের, সরকারকে খোঁচা ধনকড়ের

অপরদিকে , মুখ্য়মন্ত্রীর নির্দেশে রাজ্য়ের পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা, কোলে মার্কেট পরিদর্শনে গিয়েছিলেন। আর মুখ্য়মন্ত্রীর নির্দেশে, তার ফল মিলল। যেকানে কোলে মার্কেটে ৪০ কেজি বস্তা প্রতির দাম ছিল ৩২০০ টাকা। সেই দামও নেমে আসে ১০০০ টাকায়। পশ্চিমবঙ্গের ভেন্ডর অ্য়াসোশিয়েশনের প্রেসিডেন্ট কমল দে কথা দেন যে, আগামী এক সপ্তাহের মধ্য়ে, পেঁয়াজের দাম কমে আসবে।