জট কাটাতে অনশনরত প্রাথমিক শিক্ষকদের সঙ্গে বৈঠক করলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। কিন্তু তা সত্ত্বেও বেরোল না সমাধান সূত্র। কেন্দ্রীয় হারে বেতন বৃদ্ধির দাবি পূরণ না হওয়ায় অনশন চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন আন্দোলনকারী প্রাথমিক শিক্ষকরা। 

বেতন বৃ্দ্ধি এবং অনৈতিক ভাবে বদলি হওয়া চোদ্দজন প্রাথমিক শিক্ষককে পুরনো স্কুলেই ফিরিয়ে আনার দাবিতে গত আট দিন ধরে সল্টলেকের করুণাময়ীতে আন্দোলন চালাচ্ছেন প্রাথমিক শিক্ষকরা। বেশ কয়েকজন শিক্ষক অনশনও করছেন। ইতিমধ্যেই অনশন মঞ্চে গিয়ে শিক্ষকদের পাশে থাকার বার্তা দিয়ে এসেছেন বিধাননগরের সদ্য প্রাক্তন মেয়র সব্যসাচী দত্ত। অনশন মঞ্চে গিয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, সিপিএম বিধায়ক সুজন চক্রবর্তীরাও। 

আরোো পড়ুন- কথার খেলাপ করেছেন শিক্ষামন্ত্রী, আমরণ অনশনে এগারোজন প্রাথমিক শিক্ষক

এই অবস্থায় প্রাথমিক শিক্ষকদের আন্দোলন নিয়ে সরকারের উপরে চাপ বাড়ছিল। শেষ পর্যন্ত প্রাথমিক  শিক্ষকদের সঙ্গে বৈঠক করেন শিক্ষামন্ত্রী। বৈঠকে বদলি হওয়া শিক্ষকদের পুরনো স্কুলে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে সোমবারই ব্যবস্থা নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন শিক্ষামন্ত্রী। কিন্তু বেতন বৃদ্ধি সম্পর্কে শিক্ষামন্ত্রী কোনও নির্দিষ্ট প্রতিশ্রুতি দেননি বলেই দাবি আন্দোলনকারী শিক্ষকদের। এ দিন প্রাথমিক শিক্ষকদের পক্ষ থেকে পাঁচজনের একটি প্রতিনিধি দল শিক্ষামন্ত্রীর কাছে গিয়েছিলেন। তাঁদের দাবি, অতীতের মতো এবারেও বেতন বৃদ্ধি নিয়ে শুধু আশ্বাস ছাড়া কিছুই বলতে পারেননি শিক্ষামন্ত্রী। তাই তাঁরা অনশন এবং আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। 

আরও পড়ুন- মুখ্যমন্ত্রী হয়েই বদলে গিয়েছেন মমতা, ইস্তফা দিয়েই বিস্ফোরক সব্যসাচী

শিক্ষামন্ত্রী অবশ্য পরে দাবি করেন, রাজ্য সরকারের যা আর্থিক ক্ষমতা, তাতে প্রাথমিক শিক্ষকদের দাবি অনুযায়ী বেতনক্রম চালু করা সরকারের পক্ষে সম্ভব নয়। যুক্তিগতভাবেও একধাপে তা বাড়ানো সম্ভব নয় বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী। কিন্তু বেতনক্রম পুনর্বিন্যাস কীভাবে করা যায়, তা খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। শিক্ষকদের দাবি অনুযায়ী বেতন বাড়াতে গেলে প্রায় সাড়ে তিন থেকে চার হাজার কোটি টাকা খরচ বাড়বে বলে দাবি করেন শিক্ষামন্ত্রী। 

এ দিন প্রাথমিক শিক্ষকদের সঙ্গে সাক্ষাৎ নিয়ে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তীকেও কটাক্ষ করেছেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। একইভাবে নাম না করে সব্যসাচী দত্তকেও কটাক্ষ করেছেন তিনি।