রাতভর দুইপক্ষের টালবাহানায় দোকানের মধ্য়ে পড়ে রইল করোনায় মৃতের দেহ। এলাকাবাসীর অভিযোগ,পুলিশ ও স্বাস্থ্য দফতরের টালবাহানায় রাতভর গৌরীবাড়ি এলাকার একটি দোকানেই পড়ে থাকে ওই দেহ। শেষে স্থানীয়রা বার বার বলায় কলকাতা পুরসভা দেহ সরিয়ে নিয়ে যায়। স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনার জেরে উত্তর কলকাতার গৌরীবাড়ি এলাকায় ব্যাপক ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে বাসিন্দাদের মধ্য়ে। 

জানা গিয়েছে, গৌরীবাড়ি এলাকার একটি মিষ্টির দোকানে ওই কর্মীর মৃত্যু হয়। বেশ কিছুদিন ধরেই করোনার উপসর্গ দেখা দিয়েছিল ওই ব্যক্তির। এরপরই করোনা পরীক্ষা করা হয়। মঙ্গলবার ওই ব্যক্তির করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। বুধাবার তিনি মারা যান। এলাকাবাসীর অভিযোগ, মৃত্যুর খবর পুলিশ ও  স্বাস্থ্য দফতরেও জানানো হয়। 
কিন্তু বহু সময় কেটে গেলও কোনও ব্যবস্তা নেওয়া হয়নি। বুধবার রাতভর ওই দোকানেই পড়েছিল মৃতদেহ। শেষে বৃহস্পতিবার সকালে কলকাতা পুরসভার তরফে দেহ সরানো হয়। যা নিয়ে এলাকাবাসীদের মধ্য়ে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। প্রশ্ন উঠেছে, মঙ্গলবার রিপোর্ট আসার পরও কেন ওই ব্যক্তিকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়নি।