ফের না জানিয়ে ছাত্রীর ছবি ক্য়ামেরাবন্দি করার অভিযোগে গ্রেফতার করা হল এক যুবককে। তরুণীর বয়ানের ভিত্তিতে ওই যুবককে গ্রেফতার করেছে কালীঘাট থানার পুলিশ। তবে এই প্রথমবার নয় । কিছুদিন আগেও সেন্ট্রাল মেট্রো স্টেশনের কাছে এমনই এক লুকিয়ে ভিডিয়ো তোলার অভিযোগ ওঠে। সেক্ষেত্রেও অভিযুক্তকে ধরে ফেলেন মহিলা।

অভিযোগকারী জানায়, সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্দেশ্যে যাচ্ছিল সে। কালীঘাটে দাঁড়িয়ে মেট্রোর জন্য অপেক্ষা করার সময় তার কাছে একটা ফোন আসে। ফোনে কথা বলতে বলতে হঠাৎ পিছনে এক যুবকের দিকে নজর পরে তার। সে দেখে, তার দিকে মোবাইল ঘুরিয়ে ছবি নিচ্ছে ওই যুবক। কেন না জানিয়ে তার ছবি নেওয়া হচ্ছে তা জিজ্ঞেস করতেই হকচকিয়ে যায় ওই যুবক।

প্রথমে ছবি নেওয়ার কথা বেমালুম অস্বীকার করে অভিযুক্ত। কিন্তু পরে তরুণী হইচই করতেই সবাই চলে আসে। পুলিশকে পুরো বিষয়টা জানায় ওই তরুণী। পরে মহিলা পুলিশ ওই যুবক এবং তরুণীকে সঙ্গে নিয়ে কালীঘাট থানায় যায়। থানায় ওই যুবকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন তরুণী। ইতিমধ্য়েই এই ঘটনায় যুবককে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ।

কলকাতার সাম্প্রতিক চিত্র বলছে, মোবাইলে মহিলাদের ছবি নেওয়ার ঘটনা নতুন নয়। নিত্যদিন কোথাও না কোথাও লুকোনো ক্য়ামেরায় বন্দি হচ্ছে মহিলাদের ছবি। পরে অনেক ক্ষেত্রেই সেই ছবির ওপর আপত্তিকর ছবি চাপিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে তৎপর হয়েছে পুলিশ। হোটেলের রুম বা কোনও শোরুমের ট্রায়াল রুমেও লুকোনো ক্যামেরা ধরা পড়েছে। খোদ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি দিল্লির একটি বিপণিতে এই লুকোনো ক্য়ামেরা ধরে ফেলেন।