নীল বাতির গাড়ির নম্বর পাল্টে মাদক পাচার করতে গিয়ে পুলিশের জালে ধরা পড়ল ঝাড়খণ্ড থেকে আসা তিন দুষ্কৃতী। ইতিমধ্য়েই ধৃতদের দফায় দফায় জেরা করছে পুলিশ। এই ঘটনায় কার্যতই অবাক তদন্তকারীর দল। আর এই প্রথম কলকাতা পুলিশের তরফে জাতীয় পতাকা ও জাতীয় প্রতীক অবমাননার জন্য় মামলা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন, পার্ক সার্কাসে সিএএ বিরোধী মঞ্চে মৃত্যু আন্দোলনকারীর, নীরব প্রতিবাদের সিদ্ধান্ত

সূত্রের খবর, মাদক পাচারকারীদের চুরি করা ওই  গাড়ির সামনে লেখা ভারত সরকার। মিনিস্ট্রি অফ ডিফেন্স। দেখে বোঝার উপায় নেই যে, ওই গাড়ি ছিনতাই করে তার মধ্য়ে করেই করেই চলছে মাদক পাচার। রাস্তায় ট্রাফিক পুলিসের কর্মীরা সবাই স্যালুট দিচ্ছেন। চলন্ত অবস্থা গাড়িটির ভিতর দেখে যতটুকু বোঝা যাচ্ছে সামনে বসে আছে নিরাপত্তারক্ষী। পিছনে বসে উঁচু পদমর্যাদার কোনও অফিসার । কিন্তু  মুহূর্তেই বদলে যাচ্ছে গাড়ির নম্বর। কখনও এএসও ওয়ান বিই -৪৭১৬। কখনওবা জেএইচও ওয়ান এএন-৬২৫৮।  হাইড রোডে পৌঁছতেই বদলে গেল ছবিটা। হঠাৎ করেই বেশ কয়েকজন ভাল চেহারার আটকাল সেই গাড়িটাকে। পুলিশের হাতে ধরা পড়ল  দেশের অন্যতম কুখ্যাত মাদক চোরাচালানচক্র। উদ্ধার করা হল কয়েক কোটি টাকার মাদক। দুষ্কৃতীদের গ্রেফতার করল এসটিএফ৷

আরও পড়ুন, করোনা আতঙ্ক কলকাতায়, বেলেঘাটা আইডিতে ভর্তি মার্কিন নাগরিক


পুলিশি সূত্রের খবর, ধরা পড়া ওই তিন মাদকপাচারকারী ঝাড়খণ্ডের বাসিন্দা। আর এই প্রথম কলকাতা পুলিশ মামলা করল, জাতীয় পতাকা ও জাতীয় প্রতীক অবমাননার। মাদক পাচারে জাতীয় পতাকা ও প্রতীক অবমাননার মামলা এর আগে কখনো হয়নি। ঝাড়খন্ডের এই মাদকপাচারকারী দল এর আগেও বহুবার কলকাতায় এসেছে। মাদক পাচারই এদের অন্য়তম কাজ। তারপর সারা ভারতেই সেই মাদক ছড়িয়ে দিত ধৃতরা। গোটা ব্য়াপারটাই আরও খতিয়ে দেখছে তদন্তকারীর দল।