ঘূর্ণিঝড়ে বুলবুলের কারণে ক্ষয়-ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছে।ঘণ্টায় ১৩৫ কিমি বেগে আসতে পারে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। বিপর্যয় মোকাবিলা করার জন্য় তাই কোনও রকম ত্রুটি রাখতে চায়না রাজ্য় প্রশাসন। আর সেই জন্য়ই বৈদ্যুতিক সুরক্ষার কারনেই, কিছু এলাকায় বৈদ্যুতিক সরবরাহ বন্ধ রাখা হবে। 

আরও পড়ুন, শক্তি বাড়িয়ে হারিকেন-এর হুমকি দিচ্ছে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল

সিইএসসি অর্থাৎ কলকাতা  ইলেকট্রিক সাপ্লাই কর্পোরেশন জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড়ের বুলবুলের কারনে পরবর্ত্তী পরিস্থিতি মোকাবিলা করার জন্য় চব্বিশ ঘন্টা কাজ করবে সিইএসসির সব দফতর। সিইএসসির তরফে এসএমএস করে গ্রাহকদের  এ কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে ।

আরও পড়ুন, কুহেলির মৃত্যুতে তিন মাস শাস্তি চিকিৎসকদের, ক্ষুব্ধ পরিবার বলছে হলিডে প্যাকেজ

সকাল থেকেই শুরু হয়েছে একনাগাড়ে বৃষ্টি। তার সঙ্গে শুরু হয়েছে ঝোড়ো হাওয়া। টালিগঞ্জ থেকে টালা এবং ময়দান থেকে গড়িয়াহাট সব জায়গায় আজ দৈনন্দিন কাজের পরিমান অনেকটাই ব্য়হত হয়েছে। শহরের রাস্তাঘাট তুলনামূলকভাবে অন্য়ান্য় দিনের থেকে অনেকটাই ফাঁকা। বেলা যত গড়ানোর সঙ্গে কমছে গাড়ির সংখ্যাও। আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী, শনিবারই রাজ্যে ঘূর্ণিঝড়ে বুলবুল-এর আছড়ে পড়ার প্রবল সম্ভাবনা । তার জেরেই উপকূলবর্তী জেলাগুলি ছাড়াও কলকাতাতেও ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।