বন্দুকের গুলি দেখিয়ে দিনের পর দিন পড়ানোর ফাঁকে দশম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ। অত্যাচারের কথা কাউকে জানালে গুলি করে দেওয়ার হুমকিও দিতেন শিক্ষক। এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগের ভিত্তিতে নেতাজি নগর থেকে এক গৃহশিক্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অভিযুক্ত শিক্ষকের নাম রাজীব চক্রবর্তী। 

আরও পড়ুন- ধর্ষণে বাধা দেওয়ায় চুল কেটে ফেলা হল নাবালিকার, পুলিশের গাফিলতিতে উঠছে প্রশ্ন

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, নির্যাতিতা কিশোরী রাণিকুঠির একটি নামী স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্রী। দীর্ঘদিন ধরেই ওই কিশোরী অভিযুক্ত গৃহশিক্ষকের কাছে পড়তে যেত। ছাত্রীর বাড়িতে এসেও পড়াত ওই শিক্ষক। অভিযোগ, পড়ানোর মধ্যেই একাধিকবার ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে অভিযুক্ত শিক্ষক। তার কাছে থাকা দু'টি কার্তুজ দেখিয়ে ছাত্রীকে ভয় দেখাত ওই শিক্ষক। কাউকে কিছু জানালে তাকে গুলি করা হবে বলেও শিক্ষক হুমকি দিত বলে অভিযোগ। 

শেষ পর্যন্ত সোমবার নিজের বাড়িতে গোটা ঘটনার কথা জানায় ওই ছাত্রী। এর পরেই অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে বাঁশদ্রোণী থানায় অভিযোগ দায়ের করে নির্যাতিতার পরিবার। অভিযোগ পেয়েই নেতাজি নগরের বাড়ি থেকে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তার কাছ থেকে দু'টি কার্তুজও উদ্ধার করা হয়েছে। ধৃতকে এ দিনই আলিপুর আদালতে তোলা হবে।