স্কুল-কলেজ বন্ধ, স্থগিত হয়ে যাচ্ছে বিধানসভার অধিবেশনও। এমনকী, পিছিয়ে গিয়েছে পুরসভার ভোটও। করোনা আতঙ্ক এবার ঢুকে পড়ল রাজভবনেও! তাঁর সরকারি বাসভবনে সমস্ত অনুষ্ঠান স্থগিত রাখার ঘোষণা করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়।  টুইট করে তিনি জানিয়েছেন, ৩১ মার্চের পর অনুষ্ঠানসূচি নিয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

মুখে মাস্ক পরে রাস্তা বেরোচ্ছেন অনেকেই। বিক্রি বেড়েছে স্যানিটাইজারের। করোনার আতঙ্ক গ্রাস করেছে রাজ্যবাসীকে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় সোমবার নবান্নে প্রশাসনিক আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠকের পর তাঁর ঘোষণা, ৩১ মার্চ নয়, করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত রাজ্যে সমস্ত স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকবে। বন্ধ থাকবে সমস্ত অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রগুলি। শিশুদের জন্য বরাদ্দ চাল ও খাবার পাঠিয়ে দেওয়া হবে বাড়িতে। শুধু তাই নয়, করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য় ২০০ কোটি টাকার তহবিল গড়ার কথাও ঘোষণা করেছেন মুখ্য়মন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  এদিকে নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী যখন সাংবাদিক বৈঠক করছেন, তখনই টুইট করে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ও। টুইটে তিনি লিখেছেন, 'করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত পরামর্শ মেনে রাজভবনের সমস্ত অনুষ্ঠান স্থগিত করা হল। ৩১ মার্চের পর এ বিষয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।' 

 

 

উল্লেখ্য, এ দেশে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এখনও পর্যন্ত মারা গিয়েছেন দু'জন। সংক্রমণ ঠেকাতে দেশের সর্বত্রই জমায়েতের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক। এ রাজ্যে এখনও পর্যন্ত ৫৯ জনের করোনা সংক্রমণের পরীক্ষা করা হয়েছে। তবে কেউ এই মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হননি।