রেলের লেভেল ক্রসিং এর নীচ দিয়ে মোটরবাইক নিয়ে গেলেই সোজা জেলে পাঠাবে ভারতীয় রেল। লেভেল ক্রসিং-এ গেট পড়ে যাওয়ার পরও অনেকে পারাপার করেন।  এতে যেমন উভয়পক্ষেরই প্রাণহানীর আশঙ্কা থাকে। ঘটে যেতে পারে বড়-সড় রেল দূর্ঘটনা। তবে এবার থেকে রেলের এই নিয়ম ভাঙলে তিন বছরের জন্য় জেলে যেতে হবে। 

আরও পড়ুন, উত্তর ভারতে শুরু হয়েছে তুষারপাত, এদিকে কলকাতায় এখনও শীতের দেখা নেই

 লেভেল ক্রসিং-এ রেলের তরফে সতর্কতা জারি হিসাবে সাইরেনও বাজানো হয়, গেট পড়ার আগের থেকে ট্রেন চলে যাওয়া অবধি। তবুও শুনেও যেনও শোনেন না যাত্রী সাধারণ। সবারই সব ব্য়স্ততা বাড়ে, যেই লেভেল ক্রসিং-এ গেট ফেলা হয়। তারপরেও রেলের নিষেধাজ্ঞা ভেঙে অনেকেই প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে লেভেল ক্রসিং-র নীচ দিয়ে পারাপার হন। তাই এখন থেকে এ ব্য়াপারে আরও কড়া হল ভারতীয় রেল। রেল বোর্ডের নির্দেশে, সাধারণ মানুষকে সতর্ক করতে এবার  লেভেল ক্রসিং গুলিতে বসানো হবে আর পি এফ প্রহরা।  প্রথমে নিষেধ করা হবে, না শুনলে রেল আইন ভাঙার জন্য় গ্রেফতার করা হবে। রেল সূত্রে জানা গিয়েছে, এই ধরণের অপরাধে ধৃতদের এতদিন চালান কেটে জরিমানা করা হত। কিন্তু এবার থেকে এই রেলের  লেভেল ক্রসিং, নিয়ম না মেনে পার হলেই নতুন আইনে সোজা জেলে পাঠানো হবে। অবশ্য় দক্ষিণ-পূর্ব রেলের এস কে পারি জানিয়েছেন, এই ধরনের অপরাধে ধৃতদের কারাদন্ডের সাজার কথা রয়েছে। আরপিএফ অপরাধীদের আদালতে নিয়ে যাবে। সাজার সিদ্ধান্ত নেবে আদালত। 

আরও পড়ুন, মুখ্যমন্ত্রীর ভাইকে অপহরণ, ১৫ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি

রেল বোর্ড সূত্রে জানা গিয়েছে, রেলের প্রথম অধিকার ট্রেন চালানো। সেই ট্রেন চলার ক্ষেত্রে বাধা সৃষ্টি করা, রেল আইনে চরমতম অপরাধ। রাজ্য সরকার , বিভিন্ন দিকের রাস্তাগুলিকে চালু রাখার জন্য় রেলের কাছে লেভেল ক্রসিংয়ের আবেদন জানায়। রেল নানা দিক খতিয়ে দেখে  মঞ্জুর করে। এরপরেই লেভেল ক্রসিংয়ের গ্রেডেশন দেয় রেল। ট্রেন ভেহিকল ইউনিট দেখে রেল গ্রেডেশন করে কেমন হবে প্রহরা এবং ইন্টারলক থেকে শুরু করে যাবতীয় পদক্ষেপ করে। ট্রেন আসার সময় নিরাপত্তার জন্য গেট লাগানো হয়।  ফলে ট্রেন যাত্রী ও সড়ক পরিবহণের যাত্রী উভয়েরই নিরাপত্তার জন্য এটা আর ছোট করে দেখতে চায় না রেল। তাই রেলের তরফে নিয়ে আসা হল আইনের এই নতুন বিধি।