বাঙালি হিন্দু সমাজে দুর্গাপুজো এক অন্যতম বিশেষ ধর্মীয় ও সামাজিক উৎসব। সারা বছর ধরে অধীর আগ্রহে মানুষ অপেক্ষা করে থাকেন দুর্গা পুজোর জন্য। সমস্ত অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে, মা আসেন মর্তে। ঢাকের বোলে মেতে উঠেছে প্রকৃতি। সারা বছর পরিবার ছেড়ে বিদেশে থাকা মানুষটিও, এই বিশেষ সময়ে পরিবারের সঙ্গে কাটানোর আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যান। 'মা' আসছে বলে কথা, এই সময়টাই তো পরিবারের সঙ্গে আনন্দে মেতে থাকারই বিশেষ উৎসব। আর এরই মধ্যে নিজেদের নতুন নতুন চিন্তাভাবনা নিয়ে প্যান্ডেলের কাজ শুরু করেছে দুর্গা পুজো কমিটি এবং ক্লাবগুলি। সে রকমই অভিনব ভাবনার পুজোয় প্রকাশ ঘটতে চলেছে সল্টলেক বিসি ব্লকে। 

দেখে নিন- নাম লেখাননি এখনও, দেরি না করে অংশ নিন এশিয়ানেট নিউজ শারদ সম্মান ২০১৯-এ

 এবার দুর্গাপুজোয় প্রতিমার সঙ্গে সঙ্গে মহাদেবকেও দর্শনার্থীদের সামনে আনতে চলেছেন এখানকার পূজো উদ্যোক্তারা। তাদের কথায় দুর্গার স্বামী হওয়া সত্ত্বেও পুজোর এই ৫ দিন বলতে গেলে উপেক্ষিতই থাকতে হয় শিবকে। সেই আক্ষেপ মেটাতেই এবার তাদের মণ্ডপটি গড়ে উঠছে শিবমমন্দিরের আকারে। মন্দিরের ধাঁচে তৈরি এই মণ্ডপের মাথায় থাকছে এক বিরাট শিবলিঙ্গ। তারই মাঝে থাকবে স্বয়ং মা দুর্গার উজ্জ্বল উপস্থিতি, যে উপস্থিতিকে কেন্দ্র করে তাদের এবারের পুজোর ট্যাগ লাইন "আমি সেই মেয়ে দুর্গা"।

আরও পড়ুন- ৩০ বছর পূর্তি, ওয়েলিংটন নাগরিক কল্যাণ সমিতির পুজোয় থাকছে বিশেষ চমক

সল্টলেকের অন্যতম প্রাচীন এই পুজো এবার ৪৩ তম বর্ষে পা রাখতে চলেছে। মণ্ডপ সজ্জার কাজও এগিয়ে চলেছে দ্রুততার সঙ্গে। মণ্ডপ সজ্জার সঙ্গে যুক্ত শিল্পীরা জানিয়েছেন সেপ্টেম্বর মাসের ৩ তারিখে কাজ শুরু হলেও মণ্ডপ সজ্জা নিখুঁত ভাবে সম্পন্ন করতে সময় লাগবে সেই পঞ্চমী অবধি। সল্টলেকে পুজো দেখতে হলে তাই উঁকি মারতেই পারেন বিসি ব্লক রেসিডেন্টস এসোসিয়েশনের এই ব্যতিক্রমী থিমের পূজোয়।