শীতের মুখে কলকাতায় ফের ডেঙ্গু ছড়াচ্ছে। সঙ্গে এবার দোসর স্ক্রাব টাইফাস।  বুধবার বিকেলে এই মারণরোগে আক্রান্ত হয়ে এক ব্যক্তি মারা গেলেন শহরের একটি হাসপাতালে। মৃতের বাড়ি মুর্শিদাবাদে।

মৃতের নাম মহাদেব মণ্ডল। বছর পঞ্চাশের ওই ব্যক্তির বাড়ি মুর্শিদাবাদের দাগাপাড়ায়। বেশ কয়েকদিন ধরেই জ্বরে ভুগছিলেন মহাদেব। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, জ্বর কিছুতেই সারছিল না।  শেষপর্যন্ত মহাদেবকে ভর্তি করা হয় বহরমপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে। এদিকে ততদিনে জ্বরের সঙ্গে রোগীর হাত-পায়ে যন্ত্রণাও শুরু হয়ে দিয়েছে।  শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ার মহাদেব মণ্ডলকে কলকাতায় নিয়ে আসেন পরিবারের লোকেরা। ভর্তি করা হয় একটি বেসরকারি হাসপাতালে। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। বুধবার বিকেলে হাসপাতালে মারা যান মহাদেব মণ্ডল।  চিকিৎসকদের বক্তব্য, রোগীর শরীরে স্ক্রাব টাইফাস জীবাণু পাওয়া গিয়েছিল। সেইমতো চিকিৎসাও চলছিল।  কিন্তু শরীরের একাধিক অঙ্গ বিকল হয়ে যাওয়ায় আর বাঁচানো যায়নি।

কিন্তু এই স্ক্রাব টাইফাস রোগটি কী? কীভাবেই বা এই রোগীর সংক্রমণ ঘটে শরীরে?  বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, এই রোগের নেপথ্যে রয়েছে মাকড় বা মাইটে লার্ভা।  এই লার্ভা কিন্তু মশা বহন করে না।  এই লার্ভা যদি কাউকে কামড়ায়, তাহলে শরীরে  স্ক্রাব টাইফাসের জীবাণু প্রবেশ করে।  ক্ষতস্থানে জ্বালা করে, ফুসকুড়ি হয়। সঙ্গে জ্বর-সর্দি-মাথাব্যাথার মতো সাধারণ কিছু উপসর্গ দেখা দেয়।