হুগলির গুড়াপের পর এবার বেহালা সরশুনার আবাসিক হোম। ফের যৌননিগ্রহের অভিযোগ উঠল হোমকে ঘিরে। এবার নিগ্রহের শিকার সাত নাবালিকা।

নাবালিকাদের পরিবারের অভিযোগ, কোল্ড ড্রিঙ্কস খাওয়ানোর নাম করে হোমের মেয়েদের যৌন হেনস্থা করেছে রকিবুল শেখ নামের এক দর্জি। গত ১৭ নভেম্বর এই  ঘটনা ঘটেছে। পরে অভিভাবকদের  কানে এই খবর পৌঁছতেই হোমের বিরুদ্ধে সরব হন তাঁরা। অভিযোগ, হোমের তরফে এই অভিযোগ অস্বীকার করে উল্টে শাসানো হয় অভিভাববকদের। 

পুলিশ পরিচয় দিয়ে গৃহবধূকে পালানোর প্রস্তাব, গয়না নিয়ে চম্পট প্রতারক

ঘটনার পর থেকেই পলাতক দর্জি রকিবুল শেখ। এক দম্পতি জানিয়েছেন, ইতিমধ্যেই মেয়েকে বাড়িতে নিয়ে গেছেন তাঁরা। এ বিষয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগ জানাতে গেলে বিষয়টি আপসে মিটিয়ে নিতে বলেছে থানা। অন্তত সংবাদমাধ্য়মের কাছে তেমনই অভিযোগ করেছেন ওই দম্পতি। আবাসিক হোমে যৌন নিগ্রহের ঘটনায় কেন পুলিশ কোনও ব্যবস্থা নিল না,তা নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন। 

মমতার চিঠির জবাব, মাঝেরহাট সেতু নিয়ে রাজ্যের ঘাড়েই দায় চাপাল রেল

জানা গেছে, আক্রান্ত নাবালিকাদের পরিবার এ বিষয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগ করলে হোমে মেয়েদের রাখবে না বলে হুমকি দিয়েছে হোম কর্তৃপক্ষ। এমনকী সরশুনা থানায় অভিযোগ জানাতে গেলে অভিভাবকদেরই দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়। এমনকী হোমের পরিচালন কমিটিকে ডেকে অভিভাবকদের সঙ্গে বিষয়টি মিটিয়ে নিতে বলে পুলিশ। এই বিষয়ে এবার শিশু সুরক্ষা কমিটির  সঙ্গে যোগাযোগের চিন্তা করছেন অভিভাবকরা।