খোদ পুলিশের বিরুদ্ধে অপহরণের অভিযোগ।ঘটনা খাস কলকাতার। নদিয়ার এক সোনার ব্যবসায়ীকে অপহরণ করে তার কাছ থেকে আড়াই লক্ষ টাকার সোনা ও নগদ টাকা ছিনতাই করার অভিযোগে কলকাতা পুলিশের এক এসআ-সহ ৩ জনকে গ্রেফতার করল গোয়েন্দা পুলিশ। গ্রেফতার হয়েছে অপহরণের জন্য ব্যবহৃত হওয়ার গাড়ির চালক 

আরও পড়ুনঃ পার্কসার্কাসে টনক নড়েছে বেপরোয়া বাইকবাজদের রুখতে গান্ধীগিরি

ঠিক কী ভাবে  অপহরণের ছক কষে ছিলেন এই এস আই? সূত্রের খবর এসআই আসিস চন্দ্র ও তার বন্ধু বলাই জানত প্রতিদিন নদিয়া থেকে সোনার কেনাবেচার কারণে কলকাতায় আসত এই ব্যবসায়ী, বাবলু নাথ। তাঁর কাছে থাকত প্রচুর সোনা ও নগদ টাকা। দীর্ঘ দিন তাঁর যাতায়াতে নজর রেখেই অপহরণ ও ছিনতাই-এর ছক কষেছিল এই পুলিশ কর্তা। গত সোমবার বাবলু নাথকে মুচিপাড়া এলাকায় পাকড়াও করে একদল দুস্কৃতী। ৫০ গ্রাম সোনা কেড়ে ও নগদ এক লক্ষ টাকা কেড়ে নিয়ে তাঁকে চোখ বেঁধে নিয়ে যাওয়া হয় নিউটাউন অঞ্চলের ফাঁকা রাস্তায়। বাবলু বাবু অভিযোগ জানান মুচিপাড়া থানা এলাকায়।  পুলিশের তরফে তড়িঘড়ি যোগাযোগ করা হয় ওপরমহলে। তদন্তে নামে লালবাজার।

আরও পড়ুনঃ পার্কসার্কাসে দাদাগিরি, পুলিশকে ১০০মিটার টেনে নিয়ে গেল বেপরোয়া বাইকবাজ

সিসিটিভি ফুটেজের সাহায্যে লালবাজারের গুণ্ডা দমন শাখা প্রথমে গ্রেফতার করে গাড়ির ড্রাইভার নেপাল চন্দ্র ধরকে। তার পরেই ফাঁস হয় আশিস চন্দ্রের কীর্তি। গ্রেফতার হয় আশিস চন্দ্রের প্রধান শাগরেদ বলাই। বেলঘরিয়ার বাড়ি থেকে এই এসআই-কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।