কিছুতেই টনক নড়ছে না বাইকবাজদের। টানা নাকা তল্লাশি, গ্রেফতারি কোনও কিছুতেই বাইকবাজদের বশে আনতে পারছে না কলকাতা পুলিশ। ঊষসী কাণ্ডে প্রথম ঘুম ভাঙে ট্রাফিক পুলিশের। নিজেদের ভাবমূর্তি উদ্ধার করতে রাস্তায় নামে পুলিশ। কলকাতায় শুরু হয় ধরপাকড়। দেখা যায় প্রতিদিনই নাকা চেকিংয়ে পুলিশের জালে পড়ে অন্তত হাজারখানেক বাইক আরোহী। তাদের কারও মাথায় হেলমেট নেই, কারও আবার বৈধ কাগজপত্র নেই, কেউ আবার মদ্যপ। 

বাইকবাজদের অপরাধের তালিকাটা বেশ লম্বা। লাগাম ছাড়া গতিতে বাইকবাজি, হেলমেট বিহীন অবস্থায় অবাধ বিচরণ, মদ্যপ অবস্থায় বাইক চালানো, এক বাইকে তিন সওয়ারি, কাউকেই রেহাই দেওয়া হচ্ছে না। প্রথমদিনই ধরা পড়ে ২ হাজার ১৭৮ জনকে।

আরও পড়ুনঃ পার্কসার্কাসে দাদাগিরি, পুলিশকে ১০০মিটার টেনে নিয়ে গেল বেপরোয়া বাইকবাজ
মধ্যরাতের বাইকবাজরা সাবধান, আদাজল খেয়ে নামল কলকাতা পুলিশ

এদেরকে গ্রেফতার করতেও পিছপা হয়নি কলকাতা ট্রাফিক পুলিশ। এমনকী মাশুলও দিতে হয়েছে। তপন ওঁরাও নামক এক ট্রাফিক গার্ডকে পার্ক সার্কাসে টানতে টানতে ১০০ মিটার নিয়ে যান এক বাইকবাজ। শুক্রবার রাতেই মামলা রুজু হয়েছে মোট ১৬১২ বাইকবাজের নামে। এই অবস্থায় দেখা যাচ্ছে যতই গ্রেফতারি চলুক বাইকবাজরা থাকবেন স্বমহিমাতেই।  তাই বাইকারদের মন গলাতে এবার গান্ধীগিরির পথ নিল কলকাতা পুলিশ।
আজ সকালে ইকবালপুরে সাধারণ মানুষ ক সচেতন করার জন্য পুলিশ  স্কুল ছাত্র দর সঙ্গে নিয়ে বাইক আরোহীদের হেলমেট পরার জন্য সচেতন করে।  বিভিন্ন বাড়ি বাড়ি গিয়েও বাইকারদের সচেতন করে আসে পুলিশ। কলকাতা পুলিশের এক কর্তা জানাচ্ছে, এই দাওয়াইয়ে কাজ হলে এরপর সাধারণ মানুষকে সচেতন করার জন্য আরও অনুষ্ঠান করবে কলকাতা পুলিশ।