গায়িকাকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠল মুরারিপুকুর এলাকার তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে। অভিযোগ গণেশ চতুর্থী উপলক্ষে 
গানের পর এই কাণ্ড ঘটায় অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা। মহিলার অভিযোগ, অনুষ্ঠান চলাকালীন  মঞ্চে গান গাওয়ার পর গ্রিন রুমে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা সুরজিৎ সাহা। এলাকায় ভানু বলেই পরিচিত সুরজিৎ। স্থানীয় তৃণমূল কাউন্সিলর শান্তিরঞ্জন কুন্ড্ুর ঘনিষ্ঠ। ঘটনার পরই  মানিকতলা থানায় পৌঁছন ওই গায়িকা। ইতিমধ্যেই অভিযোগকারী মহিলার ডায়েরির ভিত্তিতে শুরু হয়েছে জিজ্ঞাসাবাদ। যদিও ঘটনার পর থেকেই পলাতক অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা। দুদিন কেটে গেলেও বাড়িতে পাওয়া যাচ্ছে না তাঁকে।  

অভিযোগকারী মহিলা জানিয়েছেন, ঘটনার দিন গান শেষ হতেই হঠাৎ করে গ্রিন রুমে তাঁর পাশে বসেন তিনি। এরপরই শুরু হয় প্রলোভনের পালা। তাঁর বাবার চিকিৎসার জন্য ১০ লক্ষ টাকা দেবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন ওই তৃণমূল নেতা। যা শুনে হকচকিয়ে যান শিল্পী। কেন তিনি তাঁকে এরকম প্রলোভন দেন তা বুঝতে পারেন না তিনি। এমনকী  সবাইকে বেরিয়ে যেতে বলে গ্রিন রুমে তাঁর সঙ্গে অসভ্য় আচরণ শুরু করেন। তিনি বার বার বেরিয়ে যেতে চাইলেও তাঁকে বেরোতে দেওয়া হয়নি। পরে বাইরে থেকে তার সাকরেদদের দরজা বন্ধ করতে বলেন ওই তৃণমূল নেতা। সবার সামনেই চলে অশালীন আচরণ। অভিযোগকারী গায়িকার দাবি, তিনি ঘর থেকে বেরিয়ে যেতে চাওয়ায় বন্দুক ঠেকিয়ে তাঁকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়। তিনিও নেতাকে সরানোর চেষ্টা করলে চলে মারধর।