প্রতিবেশীর সঙ্গে বিবাদের জেরে প্রাণ গেল ৬ সারমেয়র। অভিযোগ, ইলেকট্রিক শক দিয়ে মারা হয়েছে ওই কুকুরগুলিকে। নেতাজিনগরের এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন অভিযোগকারী মহিলা। 

এনআরএস-এর পর এবার টালিগঞ্জের নেতাজিনগর। ফের সভ্য়তার শহরে বর্বরতার নজির। ১৬টি কুকুরছানাকে পিটিয়ে মারার পর এবার ৬টি কুকুরকে ইলেকট্রিক শক দিয়ে মারার অভিযোগ। অভিযোগকারী মল্লিকা সরকার জানিয়েছেন,ওই কুকুরগুলিকে আলাদা করে রেখেছিলেন তিনি। আশ্রয়স্থল হিসাবে বানিয়ে দেওয়া হয়েছিল অস্থায়ী একটি আস্থানা। যা ঘিরে প্রতিবেশীদের সঙ্গে তাঁর প্রায়শই বিবাদ বাধত। ওরাই কুকুরগুলোকে মেরে ফেলেছে। এই বিষয়ে নেতাজিনগর থানায় অভিযোগ জানালে নির্মমভাবে পশু হত্যার ৪২৯ ধারায় মামলা রুজু করেছে পুলিশ। ইতিমধ্য়েই ওই ৬টি কুকুরকে ময়নাতদন্তের জন্য বেলগাছিয়া ভেটেনারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

ওই মহিলা বলেন, কুকুর নিয়ে অভিযোগ জানালে এই বিষয়ে পুরসভাকে উদ্য়োগ নিতে বলতেন তিনি। এলাকায় কুকুর বেশি হয়ে গেলে পুরসভাকে জানাতে বলেছেন বহুবার। কিন্তু সেই পথে না হেঁটে কুকুরগুলিকে নির্মমভাবে মেরে ফেলা হল বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। রাজ্য়ের সাম্প্রতিক অতীত বলছে, এনআরএস-এ ১৬টি কুকুরছানা মেরে ফেলার ঘটনায় অভিযুক্ত নার্সিং ছাত্রীদের কাঠগড়ায় দাঁড় করানো হয়। এবারও অভিযুক্তকে ধরতে সেই পথেই হাঁটতে চলেছেন অভিয়োগকারী।