Asianet News BanglaAsianet News Bangla

গ্রেপ্তার পার্থ চট্টোপাধ্যায়-কে সঙ্গে নিয়ে ছুটে চলেছে ইডির কনভয়, জোকা আইএসআই-তে হতে পারে মেডিক্যাল পরীক্ষা

অর্পিতাকেও হেফাজতে নিয়েছে ইডি। এই ঘটনায় আরও কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হতে পারে বলেও জানা যাচ্ছে। মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের মেডিক্যাল পরীক্ষা করানো হতে পারে বলে অনুমান। শুধু পার্থ নন অন্যদিকে মমতার আরেক মন্ত্রী পরেশ অধিকারীর বাড়িতেও অভিযান চালাচ্ছে ইডি। 

SSC scam Partha Chatterjee taken to Joka ESI for medical check up before interrogation by ED BDD
Author
Kolkata, First Published Jul 23, 2022, 11:43 AM IST

শিক্ষক নিয়োগ কেলেঙ্কারির সঙ্গে যুক্ত প্রতিটি ব্যক্তিত্বকেই গ্রেপ্তার করা হবে বলে, এমনটাই খবর ইডি দপ্তর থেকে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেপ্তারের পর শহরের মধ্যেই ঘূর্ণিপাক ইডি-র প্রথমে মনে করা হয়েছিল আলিপুর কোর্টে সরাসরি তোলা হবে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে তবে ইডি-র গাড়ি সেদিকে এগোলেও পরবর্তীতে রুট পরিবর্তন করে তাতে অনেকেরই ধারণা ছিল যে মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল হরিদেবপুরে বান্ধবী অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের ফ্ল্যাটে। যেখান থেকে ২১ কোটি টাকারও বেশি উদ্ধার করেছে ইডি। তবে আবারও ইডির গাড়ি ঘুড়ে বেহালার দিকের পথ ধরে সোজা চলেছে জোকা আইএসআই হাসপাতালের পথে।

অর্পিতাকেও হেফাজতে নিয়েছে ইডি। এই ঘটনায় আরও কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হতে পারে বলেও জানা যাচ্ছে। মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের মেডিক্যাল পরীক্ষা করানো হতে পারে বলে অনুমান। শুধু পার্থ নন অন্যদিকে মমতার আরেক মন্ত্রী পরেশ অধিকারীর বাড়িতেও অভিযান চালাচ্ছে ইডি। এর পাশাপাশি তার ঘনিষ্ঠদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এর বাইরে নিয়োগ কেলেঙ্কারির সঙ্গে জড়িত অন্যান্য কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেপ্তারের পর, এখন ইডি জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার রিমান্ড চাইতে পারে বলে মনে করছে একাংশ। 

আরও পড়ুন- সরাসরি আদালতে তোলা হতে পারে মমতা সরকারের মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে,

আরও পড়ুন- অর্পিতার ফ্ল্যাটে উদ্ধার হওয়া টাকার অঙ্ক ২১ কোটি! মিলেছে ৫০ লক্ষ টাকার গয়না

আরও পড়ুন- ২০ কোটি টাকার সঙ্গে তৃণমূলের যোগ নেই বললেন কুণাল, শুভেন্দুর সুরে সুর মহম্মদ সেলিমের


পশ্চিমবঙ্গ সরকারের মন্ত্রীদের বিরুদ্ধে নেওয়া এই পুরো ব্যবস্থাই শিক্ষক নিয়োগ কেলেঙ্কারির সঙ্গে জড়িত। ২০১৬ সালে এই নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হয়। যেখানে ওএমআর শিট জাল পদ্ধতিতে ভর্তির জন্য কারসাজি করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এতে লাখ লাখ টাকা ঘুষ নিয়ে অকৃতকার্য প্রার্থীদের পাস করানো হয়। এ ঘটনায় শিক্ষামন্ত্রী সরাসরি জড়িত বলে অভিযোগ রয়েছে। এর সঙ্গে অনেকেই জড়িত ছিল বলে জানা গেছে, যাদের গ্রেপ্তার করা হবে শিগগিরই। 

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios