পুরসভা ভোটের সংরক্ষণ তালিকা প্রকাশিত হয়েছে গত ১৭ জানুয়ারি। তারপর থেকেই নবান্নে শুরু হয়ে গিয়েছে তৎপরতা। আগামী এপ্রিলেই কলকাতা পুরসভায় পুরভোট অনুষ্ঠিত হবে বলে মনে করছে রাজ্য প্রশাসন। তারপরেই হবে বাকি পুরসভাগুলির ভোট।

আরও পড়ুন: গ্রামে আগমন ঘটেছিল বাঘের, বুদ্ধি দিয়ে বাঁচলেন যুবক, আপনিও দেখুন সেই ভিডিও

পুরভোট নিয়ে ফেব্রুয়ারি মাসের শেষ সপ্তাহেই রাজ্য নির্বাতন কমিশন বিজ্ঞপ্তি জারি করতে পারে। এমনটাই মনে করা হচ্ছে। তবে একসঙ্গে সমস্ত পুরসভায় ভোট হবে না বলেই  আশা করছে নবান্ন।

সূত্রের খবর কলকাতা পুরসভার ভোট হতে পারে এপ্রিলে। সেক্ষেত্রে ৫ এপ্রিল ভোট হওয়ার সম্ভাবনা। আর ফল প্রকাশ হতে পারে ১০ এপ্রিল।কলকাতা পুরসভার ভোট মিটলে বাকি পুরসভাগুলিতে ভোট হওয়ার সম্ভাবনা। আরো পড়ুন: ক্লাসরুমে চুম্বনে মত্ত দ্বাদশ শ্রেণির দুই পড়ুয়া, ভিডিও ভাইরাল হতেই তদন্তের নির্দেশ

বাকি পুরসভাগুলিতে তিন দফায় ভোট হতে পারে। কলকাতা পুরসভার ফলাফল দেখেই অন্য পুরসভাগুলিতে ভোটের পথে এগোতে পারে রাজ্য। সেক্ষেত্রে দক্ষিণবঙ্গের পুরসভাগুলির ভোট আগে করে পরে উত্তরবঙ্গের পুরসভার ভোট হতে পারে। 

তবে লোকসভার ভোটের ফলের নিরিখে রাজ্যের ১২৭টি পুরসভার মধ্যে ১০১টি পুরসভায় এগিয়ে রয়েছে বিজেপি। বাকি ২৬টিতে এগিয়ে রয়েছে তৃণমূল। যদিও এই মুহুর্তে ৯৯ শতাংশ পুরসভাই তৃণমূল দখলে রয়েছে।

এদিকে কলকাতায় পুর-নির্বাচনের রমকৌশল চূড়ান্ত করতে চলতি সপ্তাহে বৈঠকে বসার কথা কলকাতা জেলা বামফ্রন্টের। এর পরেই প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্বের সঙ্গে জোট নিয়ে আলোচনায় বসবেন সিপিএম নেতারা। 

তৃণমূল ও বিজেপি-বিরোধী ভোট এককাট্টা করতে গত পুর-নির্বাচনে তারা যতগুলি আসনে প্রার্থী দিয়েছিল, তার থেকে অন্তত ২০-৩০ ওয়ার্ড ছেড়েই আলোচনার টেবিলে বসতে চলেছে সিপিএম নেতৃত্ব। অতীতে কংগ্রেসের সঙ্গে আসন সমঝোতা করতে গিয়ে বাম শরিকদের নিয়ে সমস্যা পড়েছিল আলিমুদ্দিন স্ট্রিট। তাই পুরভোটে এর পুনরাবৃত্তি এড়াতে মরিয়া সিপিএম।