বছর ঘুরলেই একুশের নির্বাচন। ইতিমধ্যেই 'বহিরাগত'-র নিয়ে বাকযুদ্ধ লেগেছে আছে তৃণমূল-বিজেপি দুই শিবিরেই। একদিকে ভোটের আগে কেন্দ্রীয় নের্তৃত্ব অমিত শাহের প্রতিমাসে আসছেন বাংলায়। এবং অপরদিকে  ৫ অবাঙালি নেতাকে বাংলা জয়ে  রাজ্য বিজেপিতে নিয়োগ। এই দুই ক্ষেত্রেই  'বহিরাগত'-র তকমা দিয়েছেন ব্রাত্য বসু,  তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায় সহ আরও অনেকে। ওদিকে বিজেপির রাজ্য সভাপতিও কম যাননি। 'বহিরাগত'-র ব্ল্যাঙ্ক শিটে তিনিও এবার প্রশান্ত কিশোরের নাম তুলে আনার পর এবার  শাহরুখ খানকে তুললেন প্রশ্নের কাঠগড়ায়।

 

আরও পড়ুন, 'প্রশান্ত কিশোর তাহলে কোথাকার', ব্রাত্যের 'বহিরাগত' তকমার পাল্টা প্রশ্ন দিলীপের

 

 


 'তাহলে কি ধর্ম দেখে ব্র্য়ান্ড অ্য়াম্বাসাডর করেছিলেন'


 'বহিরাগত'-র বাকযুদ্ধে এবার প্রশ্ন তুলেছে বিজেপি যে, অমিত শাহ, নরেন্দ্র মোদী মোদী যদি বহিরাগত হন, তাহলে বাংলার অ্য়াম্বাসাডর শাহরুখ খান কোথাকার।  বহিরাগত আক্রমণের প্রেক্ষিতে এই প্রশ্ন তুলেছেন মূলত দিলীপ ঘোষ। 'অমিতাভ বচ্চন কীবাবে গুজরাটের মুখ হন পাল্টা আক্রমণ করেন', শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এরপর প্রয়াত কিংবদন্তি অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্য়ায়ের নামও উঠেছে।' সৌমিত্র চট্টোপাধ্য়ায়ের অন্তিম প্রয়াণে তাঁর জন্য রাস্তায় হাঁটলেন-কাঁদলেন বাংলার দিদি মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। তাহলে ওনাকে কেন দিদি বাংলার ব্র্য়ান্ড অ্য়াম্বাসাডর বানালেন না। তাহলে শাহরুখকে কি ধর্ম দেখে করেছিলেন' প্রশ্ন ঠুকেছেন দিলীপ ঘোষ।

 

আরও পড়ুন, ব্রাত্য 'বাঙালি', বাংলার ভোট-যুদ্ধ জয়ে 'অবাঙালি' 'পঞ্চপান্ডব' পাঠাল বিজেপি

 

 

 


 বাঙালি আবেগকে হাতিয়ার করল তৃণমূল

প্রসঙ্গত, গত লোকসভা ভোটে রাজ্য়ের অবাঙালি অধ্যুষিত আসনগুলিতে দাপট দেখিয়েছে বিজেপি। বিধানসভা ভোটে বিজেপিকে রুখতে বাঙালি আবেগকে হাতিয়ার করল তৃণমূল কংগ্রেস। 'এই রাজ্য়ের দায়িত্বে যেখানে কেন্দ্রীয় নেতাদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। সেখানে কেন্দ্রের মন্ত্রীসভায় তাহলে বাংলার কোনও সাংসদ পূর্ণমন্ত্রীর জায়গা থেকে বঞ্চিত হন কেন।'  কটাক্ষের সুরে প্রশ্ন তুলেছে তৃণমূল। উল্লেখ্য, ভিনরাজ্যে বিজেপির জয় নিয়ে কিছুদিন আগেই একগুচ্ছ কথা বলেন ফিরহাদ হাকিম। এমনকি 'বিহারে অতগুলি সিট বিজেপি কেন দেওয়া হল, সিট গুলি নষ্ট না হলে তেজস্বী যাদবের কী অবস্থান হত ' এ তীব্র আক্রমণ করেন ফিরহাদ। পাশপাশি, রাজ্য অমিত শাহের সফর শুরু হতে তোলেন উত্তরপ্রদেশের প্রসঙ্গ।  'উত্তর প্রদেশের আদিবাসী ধর্ষণ ঢাকতেই বাংলায় মতুয়া প্রেম বিজেপির' বলেন ফিরহাদ। তাই আক্রমণের আগুন জ্বলেই গিয়েছে, ভোটের যত দিন এগিয়ে আসবে, ততোই বিরোধি হোক কিংবা গোষ্ঠী কোন্দল ততই প্রকাশ্য়ে উঠে আসবে বলে মত রাজনৈতিক মহলের।

 


আরও পড়ুন, একফোনেই ফুরুৎ বিতর্ক, দিলীপকে মধ্যাহ্নভোজে আমন্ত্রণ বৈশাখীর