পড়াশোনা নিয়ে বাড়িতে বকাবকি। সেই অভিমানেই ছাদ থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মঘাতী হল এক কিশোর। শুক্রবার রাতে মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনা ঘটেছে সল্টলেকের আইসি ব্লকে। মৃতের  নাম অমিত কুমার সিনহা। 

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত অমিত কুমার সিনহা সল্টলেকেরই কেন্দ্রীয় বিদ্যালয়ের দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়া ছিল। সল্টলেকের একটি আবাসনে বাবা- মায়ের সঙ্গে থাকত সে। শুক্রবার রাতে পড়াশোনা না করার জন্য অমিতকে বকাবকি করেন তাঁর বাবা সুজিত কুমার সিনহা। জানা গিয়েছে, রাত এগারোটা নাগাদ আচমকাই পাঁচতলা আবাসনের ছাদ থেকে নীচে ঝাঁপ দেয় অমিত। 

আওয়াজ শুনে নীচে ছুটে আসেন সুজিতবাবু এবং তাঁর স্ত্রী। তাঁরা দেখেন, রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে অমিত। সুজিতবাবু এবং তাঁর স্ত্রীর চিৎকারেই প্রতিবেশীরা ছুটে আসেন। তাঁরাই অমিতকে উদ্ধার করে সল্টলেকের একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই রাত তিনটে পঁচিশ মিনিট নাগাদ মৃত্যু হয় অমিতের। 

অঞ্জন ভট্টাচার্য নামে ওই কিশোরের এক প্রতিবেশী জানান, কয়েকদিন আগেই আবাসনে এসেছিল মৃত কিশোরের পরিবার। ফলে প্রতিবেশীদের সঙ্গে ভালভাবে পরিচয়ও হয়নি তাঁদের। মৃত অমিতও শান্ত স্বভাবের ছিল বলে জানিয়েছেন প্রতিবেশীরা। কিশোরের মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে ওই আবাসনে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বিধাননগর দক্ষিণ থানার পুলিশ।