'ম্যান মেড' নাকি 'গড মেড'? করোনা ভাইরাস এবার পৌঁছে গেল আন্তর্জাতিক আদালতেও! হল্যান্ডের হেগ শহরে পোস্টকার্ড পাঠিয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করলেন পরিবেশকর্মী সুভাষ দত্ত।

আরও পড়ুন: রাজ্য়ে করোনা আক্রান্ত ৪০০ ছুঁই ছুঁই, বলছে কেন্দ্রের বুলেটিন

শুরু হয়েছিল চিনে। করোনা ভাইরাসে এখন ছড়িয়ে পড়েছে গোটা বিশ্বেই। সংক্রমণের কবলে পড়েছেন কয়েক লক্ষ মানুষ। বাদ নেই ভারতও। এ রাজ্যের পরিস্থিতিও যথেষ্ট উদ্বেগজনক। কিন্তু বিপর্যয়ের জন্য দায়ী কে? তা জানতে চেয়ে আন্তর্জাতিক আদালতের দ্বারস্থ হলেন পরিবেশকর্মী সুভাষ দত্ত। আদালতের কাছে তাঁর আবেদন, করোনা ম্যান-মেড না গড-মেড, তা আগে নির্ধারণ করা দরকার। যদি মানুষ দায়ী হন, তাহলে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যেভাবে করোনা মোকাবিলার চেষ্টা চলছে, পিটিশনে সেই বিষয়টিও উল্লেখ করেছেন মামলাকারী। সুভাষ দত্তের দাবি, কোনও দেশে লকডাউন জারি করা হয়েছে, অথচ সমস্ত পরিবহণ ব্যবস্থা, এমনকী ব্যবসায়িক সংস্থাগুলিকে সচল রয়েছে, কোনও দেশে আবার লকডাউনের নামে চলছে 'লাঠিচার্জ'। ফলে কোনও অভিন্নতা বা ইউনিফর্মিটি থাকছে না।'

আরও পড়ুন: অবশেষে ছাড়পত্র, রাজ্য়ের নজরদারিতে কলকাতা পর্যবেক্ষণে কেন্দ্রীয় দল

আরও পড়ুন: বেঙ্গালুরুতে বসে চমক বঙ্গ বিজ্ঞানীর, করোনাকে জব্দ করতে 'ট্রিবই'মাস্কের আবিষ্কার

স্রেফ ভারতেই নয়, করোনা সতর্কতায় এখন লকডাউন চলছে বিশ্বের অনেক দেশেই। লকডাউন কি আর্থিক মন্দা ডেকে আনবে? সে বিষয়ে কোনও সন্দেহই নেই সুভাষ দত্তের। তাঁর আশঙ্কা, বিপর্যয় মোকাবিলার জন্য কেউ আবার ব্যবসা ফেঁদে বসবে না তো? করোনার বাণিজ্যায়ন যেন না হয়, তা নিশ্চিত করার জন্য আন্তর্জাতিক আদালতে আর্জি জানিয়েছেন ওই পরিবেশকর্মী। শুধু তাই নয়, করোনা রোগীদের হেনস্তা ও ক্যানসার-সহ অন্য রোগকে  'সিন্দুকে পুরে' দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।