ক্রমশই তীব্র হচ্ছে শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে তৃণমূলের সম্পর্ক। আগেও দলের সাংগঠনিক কাজ থেকে দূরে থেকেছেন। এবার সরসারি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়কে এড়িয়ে গেলেন পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। বুধবার রাজ্য মন্ত্রিসভার গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে যোগ দিলেন না শুভেন্দু। অথচ, তাঁকে মন্ত্রিসভার বৈঠক নিয়ে শুভেন্দুকে সবটাই জানানো হয়েছিল বলে সূত্রের খবর।

যত দিন যাচ্ছে তৃণমূলের সঙ্গে সম্পর্ক আরও জটিল হচ্ছে রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর। বুধবার রাজ্যের মন্ত্রী সভার বৈঠকে এলেন না তিনি। সূত্রের খবর, এর বৈঠকের জন্য তাকে ডাকা হয়েছিল। কেন তিনি বৈঠক এড়িয়ে গেলেন সেই বিষয়ে যদিও শুভেন্দু অধিকারীর কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি। যদিও, এদিন বিদ্যাসাগর সেন্ট্রাল কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্কের অভ্যন্তরীণ সভায় যোগ দিয়েছিলেন তিনি। 

আরও পড়ুন-বিজেপি-পুলিশ সংঘর্ষে রণক্ষেত্র খড়গপুর, ধস্তাধস্তি-খণ্ডযুদ্ধ, বিজেপির থানা ঘেরাও কর্মসূচি ঘিরে উত্তেজনা

তবে এই অনুপস্থিতি নিয়ে রাজনৈতিক মহলে তৈরি হয়েছে জল্পনা। রাজনৈতিক মহলের দাবি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এড়িয়ে যাওয়ার জন্যেই বৈঠকে আসেননি তিনি। বেশ কিছু দিন ধরেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এড়িয়ে যাচ্ছেন শুভেন্দু অধিকারী। গত মঙ্গলবার নন্দীগ্রাম দিবসের অনুষ্ঠানে দলনেত্রীর নাম এক বারের জন্যেও মুখে আনেননি তিনি। শুধু তাই নয়, নন্দীগ্রামের আন্দোলনের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর ভূমিকা নিয়েও নিরব থেকেছেন শুভেন্দু অধিকারী। 

আরও পড়ুন-'হবে না মাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিকের টেস্ট পরীক্ষা', করোনা সংক্রমণের আশঙ্কায় ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

শুভেন্দু অধিকারীর এই এড়িয়ে যাওয়াতেই নতুন করে রাজনৈতিক পরিবর্তনের ইঙ্গিত পাচ্ছেন অনেকেই। এখানেই আরও জোরালো হচ্ছেন তার তৃণমূল ছাড়ার প্রশ্ন। কেননা, দক্ষিণবঙ্গ জুড়ে 'আমরা দাদার অনুগামী' নামে পোস্টার র পড়ছে শুভেন্দুর সমর্থনে। দলের সাংগঠনিক কাজ থেকেও অনেক দূরে রয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। এবার সরাসরি মুখ্যমন্ত্রীকে তিনি এড়িয়ে গেলেন বলে রাজনৈতিক মহলের মত।