জেসপ কারখানা পুনরায় খোলার দাবিতে ফের পথে নামল তৃণমূলের শ্রমিক ইউনিয়ন। দীর্ঘদিন ধরে জেসপ কারখানা বন্ধ রয়েছে। বন্ধ এই কারখানা পুনরায় চালু করার জন্য জেসপ-এর ৩ নম্বর গেটের সামনে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপস্থিত ছিলেন দমদম লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ সৌগত রায় দমদমের বিধায়ক ব্রাত্য বসু ,পানিহাটির বিধায়ক নির্মল ঘোষ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দমদম পৌরসভার চেয়ারম্যান  ও অসংখ্য  জেসপ আর অসংখ্য কর্মীবৃন্দ ।

বিজেপি-র মিছিল ঘিরে টালিগঞ্জে ধুন্ধুমার, আটক মুকুল রায় ও কৈলাশ বিজয়বর্গীয়

মঞ্চ থেকে দমদমের সাংসদ সৌগত রায় বলেন, জেসপের কেউ যদি ক্ষতি করে থাকে , সেটা পবন রুইয়া। ওর ইচ্ছা ছিল এই কারখানার জমিটা নিয় এটাকে বিক্রি করে দেওয়া। তাই বহু বছর কেটে গেলেও জেসপ-এর কর্মীদের কোনও উত্তরণ ঘটেনি। অতীতে জেসপ-এর বিষয়ে কথা বলতে তৃণমূল নেত্রীর কাছে গিয়েছিলেন তিনি। কারখানা খেলার জন্য় তাঁর সঙ্গে কথা হয়। তিনিও জেসপের বিষয়ে ইতিমধ্য়েই বিভিন্ন জায়গা থেকে খবর পেয়েছেন। পরে রাজ্য় সরকার বহু শিল্পপতির কাছে জেসপের বিষয়ে বলে। এই কারখানা যাতে নতুন করে খোলা যায়, তার বিষয়ে চেষ্টা করে। 

কেজরিওয়ালের পথ ধরেই কি বিধানসভার বৈতরণী পার হতে চাইছেন মমতা

কিন্তু প্রতিবারই কেন্দ্রীয় সরকারের সদিচ্ছার অভাবে আটকে যায় এই কারখানা খোলার কাজ। কারণ রাজ্য় সরকার এই কারখানা অধিগ্রহণের কাজ এগোতে চাইলেও কেন্দ্রের অনুমতি না মিললে মাঝপথেই আটকে যাবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার প্রকল্প । সেকারণে  বার বার থমকে যাচ্ছে জেসপ খোলার কাজ। এই সবের পিছনে রয়েছে ইন্ডাস্ট্রি ডেভেলপমেন্ট রেগুলেশন অ্যাক্ট। কোনও কারখানা অধিগ্রহণ বা তার বিক্রির বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের অনুমতি নিতে হয়।    

কলকাতার ডাক্তার গৃহিনীর কামুকপনায় অতিষ্ঠ স্বামী, বিয়ে বাঁচাতে পায়ে 'ড্রাইভ' স্ত্রী-র