বদলে গিয়েছে মরশুম ক্যালেন্ডার, বর্ষা আসতে দেরি হওয়ায় এমনটাই শোনা গিয়েছিল আবহাওয়া দফতর থেকে। শহরের বর্ষা ঢুকে ছিল নির্দিষ্ট সময়ের থেকে বেশ কিছুদিন পিছিয়ে। এবার তেমনটাই ঘটল বোধহয় শীতের সঙ্গে। নভেম্বর পেরিয়ে ডিসেম্বর। কিন্তু শহরের রাজ্যের বুকে সেভাবে দেখা মিলছিল না শীতের। ফলে অনেকেরই মনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছিল শীতের দেখা মিলবে তো আদৌ!

আরও পড়ুনঃ দেশ জ্বলছে-ওনারা পোশাক দেখে বেড়াচ্ছেন, মোদীকে খোঁচা দিদির

জল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে শীতের দেখা মিলল ডিসেম্বরের মাঝামাঝি। বিগত কেয়কদিন ধরেই হালকা ঠান্ডা অনুভুত হচ্ছিল। তবে বুধবার সেই তাপমাত্রার পারদ এক ধাক্কায় নেমে গেল ৩ ডিগ্রি। মঙ্গলবার রাত থেকেই বেশ ঠাণ্ডার মালুম পেল শহরবাসী। সকাল হতে না হতেই তাপমাত্রা কমে দাঁড়ালো ১৫.৬ ডিগ্রি। তবে এখানেই শেষ নয়, তাপমাত্রা কমবে আরও, এমনটাই জানানো হচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফরতর থেকে। 

আরও পড়ুনঃ বিজেপি-এর মিছিলে ফের ধুন্ধুমার কাণ্ড, হাওড়ায় পুলিশের সঙ্গে খণ্ডযুদ্ধ দলের কর্মীদের

উত্তরবঙ্গে ইতিমধ্যেই ঠান্ডা জাঁকিয়ে বসেছে। সেখানে তাপমাত্রা কমবে প্রায় ১০ ডিগ্রির কাছাকাছি। অন্যদিকে দক্ষিণেও তাপমাত্রা থাকবে ১২ ডিগ্রির কাছাকাছি। ফলে এবার বলাই যায় ঠান্ডা জাঁকিয়ে পড়তে চলেছে। বর্ষ শেষে ঘোরা কিংবা পিকনিক, সব মিলিয়ে এবার শহরবাসী উপভোগ করবে ঠাণ্ডার আমেজ। আগামী কয়েকদিনে তাপমাত্রার পারদ কমবে আরও কয়েক ডিগ্রি, এমনটাই জানানো হচ্ছে আবহাওয়া দফতর থেকে।