দীর্ঘ সময় মানুষকে নাকাল করে দক্ষিণবঙ্গে বর্ষা ঢুকল। পুরুলিয়া,মালদা,বীরভূমের কয়েকটা জায়গা বাদ দিয়ে গোটা দক্ষিণবঙ্গেইবর্ষা ঢুকেই গিয়েছে। আবহাওয়া দফতর সূত্রের খবর, দক্ষিণবঙ্গে আগামী ৪৮ ঘন্টায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হবে। বৃষ্টি হবে কলকাতাতেও। এ ছাড়া দুই মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া ও  দক্ষিণ ২৪ পরগণাতে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। 

আবহবিদদের মতে, ২৩ জুন থেকে থেকে দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টি কমতে শুরু করবে। অন্য দিকে ঠিক এই সময় থেকেই ভারী বৃষ্টি শুরু হবে উত্তরবঙ্গে। বৃষ্টির পরিমাণ ২৪ জুনের পরে। এই মুহূর্তে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরের ওপর একটা নিম্নচাপ রয়েছে। তাই সমুদ্রে হওয়ার গতি বেশি থাকবে। এই অবস্থায় মৎস্যজীবীদের আগামী ৪৮ ঘন্টায় সমুদ্রে যেতে না করা হচ্ছে।। 

প্রসঙ্গত আজ ও কাল কলকাতার তাপমাত্রা বেশি বাড়বে না, আকাশ মেঘলা থাকার জন্যে।  তবে পরশু তাপমাত্রা একটু বাড়বে কলকাতার। আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে দক্ষিণবঙ্গের সর্বত্রই ঢুকে যাবে বর্ষা। প্রসঙ্গত ১৯৮৩ সালে ২৬ জুন এবং ২০০৫ সালে ২৮ জুন বর্ষা এসেছিল। তা বাদে গত কয়েক দশকে এত দেরি করেনি বর্ষা। 

প্রসঙ্গত এবার রেকর্ড বিলম্ব করে তবে শহরে এল বর্ষা। আবহবিদরা এর জন্যে আরব সাগরে তৈরি হওয়া মৌসুমী বায়ু এবং প্রশান্ত মহাসাগরের উষ্ণ জলতলকে দায়ী করেছেন। এছাড়া সমস্ত জলীয় বাষ্পই শুষে নিয়েছে বর্ষা। ছিল তাপপ্রবাহের তীব্র দাপট। প্রসঙ্গত এদিন হাওয়া অফিসের তরফে জানানো হয়েছে, ২৪ পরগণার পথ ধরে রাজ্যে ঢুকতে চলেছে বর্ষা।