সোমবার শহর ও শহরতলির আকাশ সারাদিন মেঘলা থাকবে। আদ্রতা জনিত কারণে অস্বস্তি বেড়েছে।  আগামী আরও আটচল্লিশ ঘন্টা উত্তরবঙ্গে ভারী বৃষ্টিপাত চলবে বলে সতর্ক করে দিল কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতর। গত শুক্রবার থেকে ভারী বৃষ্টিপাতের জেরে উত্তরবঙ্গের সমস্ত নদীতে জলস্তর বেড়েছে। নিকাশী ব্যবস্থা ভেঙে পড়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।  ১৫ জুলাই অবধি উত্তরবঙ্গে লাল সতর্কতা জারি করল হাওয়া অফিস। হাওয়া অফিস সূত্রে খবর, দক্ষিণবঙ্গে বিক্ষিপ্তভাবে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস। সোমবার মুর্শিদাবাদ, নদিয়া, বীরভূম, উত্তর ২৪ পরগনায় ভারী বৃষ্টির সর্তকতা ৷ পাশাপাশি মঙ্গল ও বুধবার বিক্ষিপ্তভাবে ভারী বৃষ্টি হতে পারে পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুরে।  অপর দিকে, উত্তর-পূর্ব ভারতের বেশিরভাগ জায়গায় প্রচণ্ড ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। ঝড়ো বাতাস এবং বজ্রপাত সহ বর্ষণের সম্ভাবনা রয়েছে। অরুণাচল প্রদেশ, আসাম, মেঘালয় এবং নাগাল্যান্ড, এই অঞ্চলের উত্তরাংশে বেশি ঝুঁকিসম্পূর্ণ। ভারী বৃষ্টিতে জল বাড়ছে। আসামের বহ্মপুত্র নদী নিয়েও রয়েছে আশঙ্কা।সিকিম এবং  পশ্চিমবঙ্গেও অত্যন্ত ভারী বৃষ্টিপাতের ঝুঁকিতে থাকবে। যার দরুণ রেল, রাস্তা এবং বিমান চলাচলকে প্রভাবিত করতে পারে।

আরও পড়ুন, বাজেট কাটে থিম পুজো থেকে সাবেকিয়ানায়, করোনা বধে আসছেন দুর্গতিনাশিনী


হাওয়া অফিস সূত্রে খবর, সোমবার  কলকাতায়  সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৫.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম। এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি বেশি। বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বাধিক ৯৭ শতাংশ। আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ন্যূনতম ৬৪ শতাংশ। রবিবার  কলকাতায়  সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৫.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম।   এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪.০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি বেশি। বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বাধিক ৯৩ শতাংশ। আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ন্যূনতম ৭৩ শতাংশ। শনিবার  কলকাতায়  সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৮.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি বেশি। এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি বেশি। বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বাধিক ৯১ শতাংশ। আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ন্যূনতম ৬২ শতাংশ। রবিবার রাতে বজ্রবিদ্যুৎ সহ কলকাতায় প্রবল বৃষ্টি হয়েছে। দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি। উত্তরবঙ্গে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস যে পূর্বাভাস দিয়েছিল হাওয়া অফিস, তা মিলে গিয়েছে। ইতিমধ্যে বৃষ্টি শুরু হয়ে গেছে| সোমবার  ৮ টা ৩৫ মিনিটে শহরের এই মুহূর্তের তাপমাত্রা ২৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আরও পড়ুন, অমিতাভের আরোগ্য় কামনায় সারা কলকাতা, রবিবার পুজো ও যজ্ঞ হল শ্য়ামবাজারের শিবমন্দিরে


মৌসুমী অক্ষরেখার পূর্বাংশ হিমালয়ের পাদদেশে অবস্থান করছে। সক্রিয় মৌসুমী অক্ষরেখার পশ্চিমাংশ। মৌসুমী অক্ষরেখার অমৃতসর, বরেলি, মধুবনি ,পাটনা হয়ে হিমালয়ের পাদদেশ পর্যন্ত বিস্তৃত। এর প্রভাবেই উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলি এবং সিকিম উত্তরবঙ্গে প্রবল বৃষ্টির পূর্বাভাস।  ভারি থেকে অতিভারি বৃষ্টি হবে দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি, কোচবিহার এবং আলিপুরদুয়ারের বেশ কিছু অংশে। উত্তরবঙ্গে প্রবল বৃষ্টিতে দার্জিলিং,কালিম্পং পার্বত্য ধ্বসের আশঙ্কা করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে উত্তরবঙ্গের নিচু এলাকা প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। উত্তরবঙ্গের নদী গুলির জলস্তর অনেকটাই বাড়তে পারে। বেশ কিছু এলাকায় বন্যার পরিস্থিতির প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে।  উল্লেখ্য, শনিবার সকাল পর্যন্ত উত্তরবঙ্গে সবচেযে বেশি বৃষ্টি হয়েছে হাসিমারায়। সেখানে বৃষ্টি হয়েছে ১৮৬ মিমি। ময়নাগুড়িতে বৃষ্টি হয়েছে ১১৬ মিমি। এছাড়া আলিপুরদুয়ারে ১১৫ মিমি, জলপাইগুড়িতে ৯৩ মিমি।  অবিরাম বৃষ্টির জেরে জলমগ্ন ডুয়ার্সের একাধিক চা বাগান। জল বাড়ছে আলিপুরদুয়ারের তোর্সা ও কালজানি নদীর।  অপরদিকে, সোমবার মুর্শিদাবাদ, নদিয়া, বীরভূম, উত্তর ২৪ পরগনায় ভারী বৃষ্টির সর্তকতা ৷ পাশাপাশি মঙ্গল ও বুধবার বিক্ষিপ্তভাবে ভারী বৃষ্টি হতে পারে পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুরে।