রবিবার সাতসকালেই শহরের আকাশ আংশিক মেঘলা। এদিকে বৃষ্টিও শহর থেকে উধাও হয়ে ভ্যাপসা গরম কলকাতায়। তার উপর  আদ্রতা বেড়ে অস্বস্তি চরমে।  রবিবারও সর্বোচ্চ- সর্বোনিম্ন তাপমাত্রা দুইই স্বাভাবিকের উপরে উঠল।  উল্লেখ্য, আমফান-আতঙ্কের বছর ঘুরতেই এবার আঁছড়ে পড়তে চলেছে ভয়ানক ঘূর্ণিঝড় তাউতে। 

আরও পড়ুন, লকডাউনে জরুরী পরিষেবায় বেরোতে কীভাবে জোগাড় করবেন ই-পাস, জেনে নিন 


আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর এদিন শহরের আকাশ আংশিক মেঘলা থাকবে। দুপুর বা বিকেলের দিকে মেঘে-মেঘে বজ্রবিদ্যুৎ সহ গর্জন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই এই সময় সতর্ক থাকা উচিত। কারণ গত মঙ্গলবারেই রাজ্যে  বজ্রবিদ্যুৎ সহ প্রবল বর্ষণ হয়েছিল। সেদিন বজ্রপাতে মৃত্যু হয় একাধিক সাধারণ মানুষের। তাই এই বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে। প্রধানত বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি ও ঝড়ের সময় ঘর থেকে না বেরোনোর পরামর্শ আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের। একদিন বাংলা থেকে বৃষ্টি উধাও হলেও কেরলে আসছে বর্ষা। কেরলে বর্ষা আসার স্বাভাবিক সময় ১ জুন। জুন থেকে সেপ্টেম্বর- এই চার মাস গোটা দেশেই ৭০ শতাংশ বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর।কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের সচিব এম রাজীবন সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছেন আবহাওয়া দফতরের কথা তুলে ধরে জানিয়েছেন কেরলে নির্ধারিত সময় আসবে বর্ষা। 

আরও পড়ুন, 'আমার বাবাকে ফিরিয়ে দাও গো', সন্ত্রাস বিধ্বস্ত নন্দীগ্রাম দেখে কেঁদে ফেললেন রাজ্যপাল 

অপরদিকে, আমফান-আতঙ্কের বছর ঘুরতেই এবার আঁছড়ে পড়তে চলেছে ভয়ানক ঘূর্ণিঝড় তাউতে। ভারতবর্ষের বুকে আরও এক ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ের তালিকায় নাম তুলতে চলেছে এটি। এই মুহূর্তে গুজরাট এবং কঙ্কণ উপকূলের খুব কাছেই অবস্থান করছে ঘূর্ণিঝড় তাউতে। শনিবার সন্ধ্যায় জাতীয় আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী রাতের মধ্যেই ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে তাউতে। তখন এর মূলকেন্দ্রে ঝোড়ো হাওয়ার গতিবেগ দাঁড়াবে ঘণ্টায় ১২০ থেকে ১৩৫ কিলোমিটার। এরপর ১৬ তারিখ থেকে ১৮ তারিখের মধ্যে ঘূর্ণিঝড় তাউতে-এর ঝোড়া হাওয়ার গতিবেগ পৌঁছবে সর্বোচ্চ ১৭৫ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা-তে।   আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী ঘূর্ণিঝড় তাউতে-র মূল নিশানায় রয়েছে গুজরাটের পোরবন্ধর এবং নালিয়া।  ঘূর্ণিঝড় তাউতে নিয়ে শনিবার এক উচ্চপর্যায়ের বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বৈঠকে ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় যাবতীয় প্রস্তুতি নিয়ে তিনি আলোচনা করেন।   ঘূর্ণিঝড় তাউতের  জেরে দক্ষিণ ভারতে ব্যাপক বৃষ্টি এবং ঝোড়ো হাওয়া বইছে। 


আরও পড়ুন, দ্বিতীয়বার করোনা আক্রান্ত হলেন অগ্নিমিত্রা পাল, আসানসোলবাসীকে দিলেন সতর্কবার্তা 

 আবহাওয়া দফতরে খবর অনুযায়ী,রবিবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৬.৫ডিগ্রি সেলসিয়ার্স।  স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি উপরে। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা  ২৮.৭ ডিগ্রী। স্বাভাবিকের থেকে ২ ডিগ্রি উপরে। অপরদিকে এদিন শহরের বাতাসে জলীয়বাষ্পের সর্বোচ্চ পরিমাণ ৯৩ শতাংশ এবং সর্বনিম্ন ৫৭ শতাংশ বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস। শনিবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৫.৮ ডিগ্রি সেলসিয়ার্স।  স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি উপরে। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা  ২৭.৮ ডিগ্রী। স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি উপরে। অপরদিকে এদিন শহরের বাতাসে জলীয়বাষ্পের সর্বোচ্চ পরিমাণ ৯৩ শতাংশ এবং সর্বনিম্ন ৫৬ শতাংশ বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস। শুক্রবার শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩১.৯ ডিগ্রি সেলসিয়ার্স।  স্বাভাবিকের থেকে ৩ ডিগ্রি নীচে। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা  ২৪.৫ ডিগ্রী। স্বাভাবিকের থেকে ২ ডিগ্রি নীচে। অপরদিকে এদিন শহরের বাতাসে জলীয়বাষ্পের সর্বোচ্চ পরিমাণ ৯৩ শতাংশ এবং সর্বনিম্ন ৫৬ শতাংশ বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস।

<