এক-দু'দিন নয় টানা ৬দিন  ৩০০০ ছাড়াল রাজ্য়ের করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। রাজ্য়ের করোনা বুলেটিন বলছে, বুধবারও পশ্চিমবঙ্গে করোনা আক্রান্তের সংখ্য়া ৩১৬৯ জন। মঙ্গলবার এই সংখ্য়াটা ছিল ৩০৭৫। সোমবার ৩০৮০। রবিবার তা কিছুটা কমে হয়েছিল ৩০৬৬ জন। কমার নাম ছিল  না শনিবারও। সেদিনও রাজ্য়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্য়াটা ছিল ৩০৭৪ ও শুক্রবার যথাক্রমে ৩০৩৫ জন। এই পরিসংখ্য়ানই দেখিয়ে দিচ্ছে,করোনা নিয়ে উদ্বেগ কমছে না স্বাস্থ্য় দফতরের।

পরিসংখ্য়ান বলছে, এই নিয়ে সব মিলিয়ে রাজ্য়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্য়া হল ১,২৫, ৯২২জন। রাজ্য়ের স্বাস্থ্য় দফতরের বুলেটিন অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৫৩ জন করোনা আক্রান্তের। যার জেরে রাজ্য়ে মোট করোনা নিয়ে মৃত্যুর সংখ্য়া দাঁড়াল ২৫৮১ জন। গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন ২,৯৭৩ জন৷ মঙ্গলবার এই সংখ্যাটা ছিল ২,৯৮৭ জনে। সব মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত রাজ্য়ে মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৯৫,৬৬৩ জন৷ স্বস্তির খবর, সুস্থ হয়ে ওঠার হার বুধবার বেড়ে দাঁড়াল ৭৫.৯৭ শতাংশ৷

এদিনে রাজ্য়ের করোনা বুলেটিনের সঙ্গে সঙ্গে সঙ্গে স্বস্তি  ফিরেছে তৃণমূলে। বুধবারই করোনা জয় করে বাড়ি ফিরেছেন তৃণমূলের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ ও মহেশতালার বিধায়ক দুলাল দাস। কদিন আগেই করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন তাঁরা। পরপর তৃণমূলের বেশ কেয়কজন নেতার সংক্রমণে মৃত্য়ু নিয়ে চিন্তায় ছিল দল। জানা গিয়েছে, নিয়ম মেনে  আগামী সাত দিন হোম আইসোলেশনে থাকবেন ওই দুই নেতা।

সম্প্রতি রাজ্য়গুলিকে করোনা টেস্টের হার বাড়ানোর কথা বলেছিল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য় মন্ত্রক। রাজ্য়ের হিসেব বলছে,গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্য়ে  টেস্ট হয়েছে ৩৪,৩৫৮টি৷ মঙ্গলবার এই সংখ্য়াটা ছিল ৩৫,১০৭টি৷ সব মিলিয়ে রাজ্য়ে এখনও পর্যন্ত টেস্ট হয়েছে ১৪,১৬,৫৫৬টি৷ প্রতি ১০ লক্ষ জনসংখ্যায় টেস্টের সংখ্যা বেড়ে হল ১৫,৭৪০ জন৷