'সুবোধ ঘোষের বীরত্বকে কুর্নিশ।' টুইট করে কাশ্মীরে পাকিস্তানে ছোঁড়া গুলিতে শহিদ বাঙালি জওয়ান পরিবারকে সমবেদনা জানালেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। এত দেরি কেন? জোর আলোচনা চলছে রাজনৈতিক মহলে। 

আরও পড়ুন: দার্জিলিং রাজভবনে রাজ্যপালের দীপাবলি উদযাপন, ছবি শেয়ার করলেন জগদীপ ধনখড়

ছোট থেকে ভালো ছিলেন পড়াশোনায়। নিজের যোগ্যতায় অল্প বয়সেই সেনাবাহিনী চাকরি পেয়েছিলেন নদিয়ার তেহট্টের রঘুনাথপুরের বাসিন্দা সুবোধ ঘোষ। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, চার বছর ধরে সেনাবাহিনী চাকরি করছিলেন তিনি। বিয়েও করেছিলেন গত বছর। তাঁর মেয়ের বয়স মাত্র তিনমাস। জুলাই মাসে ছুটিতে শেষবার তেহট্টের বাড়িতে এসেছিলেন সুবোধ। চল্লিশ দিনের ছুটি কাটিয়ে ফের কর্মস্থল কাশ্মীরে ফিরে গিয়েছিলেন তিনি। বলে গিয়েছিলেন, ডিসেম্বর আবার আসবেন। কিন্তু কথা আর রাখতে পারলেন কই! শুক্রবার সীমান্তে পাকিস্তানের সংঘর্ষবিরতির জেরে ছেলের খবর জানতে পারেন পরিবারের লোকেরা। শহিদের কফিনবন্দী দেহ ফেরার অপেক্ষায় গোটা গ্রাম।

আরও পড়ুন: বিরসা মুণ্ডা-বন আর ভূমির অধিকার, আদিবাসীদের মনে জাগিয়েছিলেন সেই অধিকার বোধ

 শনিবার শহিদ জওয়ানের বাড়ি গিয়ে পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন তৃণমূল বিধায়ক গৌরীশঙ্কর দত্ত। রাজ্য় সরকারের তরফে পরিবারের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। কাশ্মীরে পাক হামলার প্রতিবাদে ক্ষোভে ফুঁসছেন সকলেই। পড়শি দেশের বিরুদ্ধে পাল্টা ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি তুলেছেন কংগ্রেস সাংসদ অধীর চৌধুরী। এসবের মাঝেই রবিবার সকালে টুইট করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়।