রাজ্য় পুলিশে বড়সড় রদ বদল। এক রাতে বদলি করা হল ৪০ জন পুলিশ অফিসারকে। তবে মধ্য় রাতে এই বদলির নির্দেশ অনেক জল্পনার জন্ম দিয়েছে। সংবাদ সংস্থা এএনআই এই খবর প্রকাশ করেছে। জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাতে জারি করা হয়েছে সেই নির্দেশনামা।

যদিও রাজ্য় পুলিশ সূত্রে খবর, এই নির্দেশনামা রটিন বদলি। এর পিছনে কোনও সাম্প্রতিক ইস্য়ু জড়িয়ে নেই। বদলির তালিকায় রয়েছেন একাধিক জেলার ডেপুটি পুলিশ সুপার। রয়েছেন, কোচবিহার, মালদা, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া সহ একাধিক জেলার ডেপুটি পুলিশ সুপার। 

রাজ্য়ের সাম্প্রতিক চিত্র বলছে, করোনা পরিস্থিতিতে পুলিশের ওপর হামলার ঘটনা বেড়েছে। কদিন আগেই বাদুড়িয়ায় ত্রাণে রাজনীতির অভিযোগে রাস্তা অবরোধ করেন এলাকার মানুষজন। পুলিশে তাদের উঠতে বলায় খণ্ডযুদ্ধ লেগে যায় এলাকাবাসী-পুলিশের মধ্য়ে। পরিস্থিতি আরও খারাপ দিকে যায় , যখন পুলিশকে লক্ষ্য় করে ইট ছোড়ে স্থানীয়রা। যদিও বিসাল পুলিশ বাহিনী গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। 

বাদুড়িয়ায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পারলেও হাওড়ায় লকডাউন মানতে বলায় পুলিশের সঙ্গে রণক্ষেত্র বেধে যায় টিকিয়াপাড়ার বিসান্দাদের। পুলিশকে লক্ষ্য় করে পাথর ছোড়ে উত্তেজিত লকডাউন ভঙ্গকারীরা। এমনকী চর, থাপ্পর, লাথি মারা হয় পুলিশকর্মীদের। সংঘর্ষে মাথা ফাটে পুলিশ কর্মীর। বেগতিক দেখে পালায় পুলিশের দল। পরে বিশাল পুলিশ বাহিনী এসে এলাকায় ধরপাকড় শুরু করে। আটক করা হয়েছে ১৪ জনকে। পুলিশের এই মার খাওয়ার ঘটনা নিয়ে মুখ্য়মন্ত্রীকে খোঁচা দিতে ছাড়েনি বিজেপি। হাওড়ার ঘটনায় সংখ্য়ালঘু তোষণের রাজনীতি দেখছে বিজেপি।