আনলক ১.০ শুরু হয়ে হয়ে গেছে। ধীরে ধীরে শুরু হয়েছে অর্থনৈতিক কার্যকলাপ। এই রাজ্যেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার দিকেই হাঁটছে রাজ্যসরকার। সরকারি বেসরকারি অফিস খুলে দেওয়া হয়েছে। বাস ট্রাম চলাচলের ওপরেও বিধি নিষেধ প্রত্যাহার করা হয়েছে। কিন্তু এখনও চালু হয়নি লোকাল ট্রেন পরিষেবা। আর কলকাতার সঙ্গে শহরতলীর মানুষের মূল যোগাযোগাযের কেন্দ্র বিন্দুই হল হাওড়া ও শিয়ালদা স্টেশন। কিন্তু লোকাল ট্রেন এখনও চালু না হওয়ায় প্রবল সমস্যায় পড়েছে শহরতলীর যাত্রীরা। কর্মস্থলে আসার জন্য দ্বিগুণ বা তিনগুণ বেশি ভাড়া গুণতে হচ্ছে। যা আর্থিক চাপেরও কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে একটাই প্রশ্ন কবে থেকে শুরু হবে লোকাল ট্রেন পরিষেবা।

রেল বোর্ড সূত্রের খবর, লোকাল ট্রেন চলাচলের ক্ষেত্র প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত নিতে হবে রাজ্য সরকারকেই। পশ্চিমবঙ্গ সরকার বললেই ট্রেন চলাচল শুরু করতে প্রস্তুত বলেও জানান হয়েছে। তবে ট্রেন চলাচলের ক্ষেত্রে কী প্রটোকল তৈরি হবে, স্বাস্থ্য বিধি কী হবে তা নিয়ে রাজ্যসরকারের সঙ্গে আলোচনা করেই পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে পূর্ব রেল সূত্রের খবর। কোন কোন স্টেশনে ট্রেন থামবে আর নিরাপত্তার কী ব্যবস্থা করা হবে, নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব মানতে  জিআরপি আর আরপিএফ-এর কী ভূমিকা হবে তাই নিয়েও প্রয়োজনে রাজ্য সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে সূত্র মারফত জানা গেছে। স্বাস্থ্য বিধি মেনে কত যন যাত্রী পরিবহণ করা হবে তা নিয়ে আলোচনার প্রয়োজন রয়েছে বলে সূত্রের খবর। 

সোমবার থেকেই মুম্বইতে মহারাষ্ট্র সরকারের জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে লোকাল ট্রেনের দরজা। তবে সব স্টেশনে ট্রেন থামবে না বলেও জানান হয়েছে। পাশাপাশি সাধারণ যাত্রীদের ক্ষেত্রে ট্রেন সফরের ওপর নিষেধাজ্ঞা এখনও বলবত রয়েছে। সেইমত কী এই রাজ্যেও লোকাল ট্রেন পরিষেবা শুরু করা যেতে পারে? যা নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। 

নয়া রেকর্ড গড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত প্রায় ১১ হাজার, দেশে সংক্রমণের সংখ্যা এবার ৩ লক্ষ ছুঁই ছ...

রাহুল গান্ধীর তূণে 'আইনস্টাইন' বান, করোনা নিয়ে অভিনব কায়দায় আক্রমণ মোদী সরকারকে ...

করোনা সংকটের মধ্যেই মুম্বইয়ে শুরু লোকাল ট্রেন পরিষেবা, এই রাজ্যে কবে থেকে শুরু হ

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে মার্চ মাস থেকেই বন্ধ ছিল লোকাল ট্রেন পরিষেবা। থমকে গেছে হাওড়া ও শিয়ালদহ স্টেশনের চেনা ছবিটাও। শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন সহ দুই একটি মেল ট্রেন যাতায়াত করলেও লোকাল ট্রেন না চলায় নেই সেই যাত্রী স্রোতের চেনা ছবিটা। নেই সেই কোলাহল। লোকটাল ট্রেন চলাচল শুরু হলেও আর্থিক কার্যকলাপে গতি আসবে বলেই দাবি করছেন বিশেষজ্ঞরা।