রহস্যজনক পোকার কামড়ে মৃত্যু হল গৃহবধূর। কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে ঘটেছে এই ঘটনা। মৃতের নাম সুদীপা নন্দী। সুদীপার বাড়ি হুগলির বৈদ্যবাটি এলাকার বৈদ্যপাড়ায়। 

পরিবার সূত্রে খবর, গত ১৩ নভেম্বর বাড়ির শৌচাগারে হাতে একটি পোকা কামড়ায় সুদীপাকে। কিছুক্ষণের মধ্যেই সারা শরীরে শুরু হয় অসম্ভব যন্ত্রণা। শরীরের একাংশ সবুজ হয়ে যায় ওই মহিলার। ওইদিনই তাঁকে ভর্তি করা হয় শ্রীরামপুরের ওয়ালশ হাসপাতালে। অবস্থার অবনতি হওয়ায় দুদিন পর তাকে এসএসকেএম-এ নিয়ে আসা হয়। সেই থেকে এসএসকেএম-এ চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। প্রথমে সাধারণ বেডে রাখা হলে অবস্থার অবনতি হয়। পরে ওই গৃহবধূকে ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটে ভর্তি করা হয়। বুধবার ওই গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে।

ইতিমধ্যেই গৃহবধূর মৃত্যু ঘিরে দিশেহারা অবস্থা হয়েছে হাসপাতালের চিকিৎসকদের।  কী কারণে মৃত্যু হলো ওই গৃহবধূর তা বুঝে উঠতে পারছেন না তাঁরা। কীসের কামড়ে ওই গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে , তা জানার জন্য ময়নাতদন্তের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন চিকিৎসকেরা। পরিবারের কাছে ওই মহিলার ময়নাতদন্তের জন্য আবেদন জানানো হয়েছে। ইতিমধ্যেই চিকিৎসকদের কথা মেনে নিয়েছে পরিবার। সুদীপার মৃত্যুর পর থেকেই অজানা পোকার আতঙ্ক গ্রাস করেছে বৈদ্যবাটীতে। কেউ কেউ বলছে, বিষাক্ত মাকড়শার কামড়ে মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে ওই গৃহবধূর। ট্যারান্টুলার দিকেই দিক নির্দেশ করছেন স্থানীয়রা। যদিও এই প্রজাতির মাকড়শা এখানে দেখা যায় না বলেই জানা গেছে।