বাসের মধ্যেই লুকিয়ে মহিলা যাত্রীর ছবি তুলছিল দুই যুবক। আর তা দেখে ফেলে ছবি তোলার দৃশ্যই মোবাইলে রেকর্ড করে রাখলেন অন্য এক যাত্রী। প্রমাণ-সহ হাতেনাতে ধরা পড়তেই অভিযুক্তদের ধরে গণপ্রহার দিলেন অন্যযাত্রীরা। পরে বাস থামিয়ে এক অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ। 

আরও পড়ুন- মদ্যপান করে মাদকবিরোধী মিছিলে আইসি, সাসপেন্ড করে দিলেন এসপি

এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠল ধুলাগড় থেকে শিয়ালদহগামী একটি বেসরকারি বাসে। অভিযোগ, রবিবার দুপুরে বাসটি ধর্মতলা পৌঁছলে সেখান থেকে দুই যুবক বাসে ওঠে। বাসে ওঠার পর থেকেই এক মহিলা যাত্রীর অসতর্কতার সুযোগ নিয়ে লুকিয়ে মোবাইলে তাঁর ছবি তুলতে থাকে ওই দুই যুবক। তা দেখে ফেলে অন্য এক যাত্রী যুবকদের এই কীর্তি নিজের মোবাইলে ভিডিও রেকর্ডিং করে। তার পরে ওই দুই যুবককে বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন করতেই ছবি তোলার অভিযোগ অস্বীকার করে তারা। তখন নিজের মোবাইলে প্রমাণ হিসেবে রাখা যুবকদের কীর্তির ভিডিও চালিয়ে দেখিয়ে দেন ওই সহযাত্রী। অভিযুক্তদের মোবাইলেও ওই যুবতীর ছবি পাওয়া যায়। 

হাতে গরম প্রমাণ পেয়ে অভিযুক্ত যুবকদের গণপ্রহার দিতে শুরু করেন বাসের অন্যান্য যাত্রীরা। যে যুবতীর লুকিয়ে ছবি তোলা হচ্ছিল, তিনি ১০০ ডায়ালে ফোন করে পুলিশকে গোটা ঘটনার কথা জানান। বিপদ বুঝে ওই যুবতীর পা ধরে ক্ষমাও চায় অভিযুক্তরা। এর পরে শিয়ালদহে এনআরএস হাসপাতালের সামনে বাসটিকে আটকায় পুলিশ। জটলার মধ্যে থেকেই অবশ্য এক অভিযুক্ত পালিয়ে যায়। অন্য অভিযুক্তকে আটক করেছে পুলিশ।