একটানা লকডাউনের ফলে অনেককেই ঘরের কাজ সারতে হয়েছে নিজের হাতে। করোনা ঠেকাতে বন্ধ ছিল ঘরের সাহায্যের অতিরিক্ত সাহায্যের হাতটি। ফলে একটানা ঘরের কাজ করার ফেল বারোটা বেজেছে আঙ্গুল-সহ নখের। অতিরিক্ত জল বা সাবান বা স্কিন প্রোডাক্টের ক্ষতিকর ক্যামিকেলের ব্যবহারে আমাদের হাতের নখ ক্ষতিগ্রস্থ হয়।ত্বক, চুল বা হাত বা পায়ের যত্নের পাশাপাশি প্রয়োজন হাতের ও পায়ের নখের যত্নের। শরীরের অন্যান্য অঙ্গের মত নখের যত্ন নেওয়াও অত্যন্ত জরুরি।

আরও পড়ুন- হোয়াইট না ব্রাউন ব্রেড, সকালের জলখাবারের জন্য কোন পাউরুটি সবচেয়ে বেশি পুষ্টিকর এবং উপকারী

 হাতের সৌন্দর্যের অন্যতম অংশ হচ্ছে নখ, তবে অনেক সময় দেখা যায় নখ ভেঙ্গে যাচ্ছে বা ঠিকমত বড় হচ্ছেনা এবং দেখতে ফ্যাকাসে লাগছে এই ধরনের সমস্যায় দেখা দেয়। তাই ম্যানিকিউর বা পেডিকিউর এর মাধ্যমে নখের যত্ন নিতে পার্লারের স্মরণাপন্ন হতে হয়। তবে পুজোর এই শেষ সময়ে পার্লারে না গিয়ে বাড়িতে থেকেই আপনি পেয়ে যাবেন পার্লারে মত নখের যত্ন। যদি আপনার নখ পাতলা ও ভঙ্গুর হয় তবে বুঝতে হবে আপনার শরীরে ভিটামিন, খনিজ এবং প্রোটিনের অভাব রয়েছে। তাই সুন্দর ও সঠিক নখের গঠন পেতে মেনে চলুন এই পদ্ধতিগুলি।

 

 

১) প্রথমেই নখ কেটে নিয়ে তা পরিষ্কার করে নিতে হবে। নখ কাটার সময় ক্লিপারের ব্যবহার করতে হবে। এতে নখ সুন্দর ভাবে ও সঠিক মাপে কাটা যায়। 
২) নখ কাটার পর তা ফাইলিং করতে হবে। যদি সুন্দর শেপে নখ কাটাও হয় আর ফাইলিং ঠিক মত না হয়ে তবে নখ দেখতে খুব খারাপ লাগবে। 
৩) এরপর ঈষদউষ্ণু জলে ভালো করে আঙ্গুল ঘষে পরিষ্কার করে নিন। এর ফলে আঙ্গুলে থাকা ডেড সেল বেরিয়ে যাবে। 
৪) হাত মুছে প্রয়োজনে নখের কোনগুলি আরও একবার ফাইল দিয়ে ঘষে নিন। 
৫) হাত শুকিয়ে গেলে পছন্দের রং এর নেইল পলিশ বেছে পড়ে নিন। 
৬) এক সপ্তাহ পর রিমুভার দিয়ে নেইল পলিশ তুলে ফেলুন। এক সপ্তাহের বেশি কখনই নেলপলিশ রেখে দেবেন না। 
৭) প্রয়োজনে আবারও নখ পরিস্কার করে নিয়ে নেইল পলিশ ব্যবহার করুন।