১ এপ্রিল (আইএনএএস) ২০২০-২১ বাজেটে কেন্দ্রীয় সরকার ঘোষিত বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ ১ এপ্রিল থেকে কার্যকর হচ্ছে। আয়কর প্রদানের পদ্ধতি সহ এই বছর থেকে কিছু উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন হয়েছে। প্রত্যক্ষ ও অপ্রত্যক্ষ উভয় কারণেই বুধবারের মধ্যে দেশব্যাপী প্রয়োগ করা হবে। ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্ক জানিয়েছে, ১ এপ্রিল থেকে ১০টি রাষ্ট্র পরিচালিত ব্যাঙ্ক একীকরণের প্রকল্পগুলি কার্যকর হচ্ছে। দেশের ইতিহাসে এই প্রথম নতুন অর্থবর্ষ থেকে দুই ধরণের আয়কর ব্যবস্থা কার্যকর করা হচ্ছে। বাণিজ্যিক আয় ব্যতীত পৃথক করদাতাদের দুটি বিকল্প দেওয়া হয়। ১) তারা পুরানো আয়কর প্রদানের পদ্ধতিতে চালিয়ে যেতে পারে এবং ২) বিভিন্ন করের ক্রেডিট অর্জন করতে পারে বা কোনও ট্যাক্স ছাড় দিয়ে কম আয়কর ছাড়ের অর্থ প্রদান করতে পারে। 

আরও পড়ুন- লকডাউনে সুখবর, ঘরবন্দি গ্রাহকদের জন্য দ্বিগুণ ডেটার অফার দিচ্ছে জিও

ব্যাঙ্ক নিয়ন্ত্রক ভিন্ন ভিন্ন বিজ্ঞপ্তিতে ঘোষণা করেছে যে মার্জিং ব্যাংকের শাখাগুলি যে সব ব্যাঙ্কগুলিতে সংহত হয়েছে, তাদের হিসাবে কাজ করবে। সরকারী খাতে আরও বড় আকারের শক্তিশালী ব্যাংক গঠনের একীকরণ পরিকল্পনার অংশ হিসাবে সরকার ৪ মার্চে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ১০ টি ব্যাঙ্কের একীকরণ প্রকল্পকে নির্দেশ দিয়েছিল।

আরও পড়ুন- লকডাউনে বেশিরভাগই নির্ভরশীল ওয়াইফাই রাউটারে, হ্যাকাররা কাজে লাগাচ্ছে এই সুযোগ

এই বিষয়ে ব্যাঙ্ক অফিসার ইউনিয়নগুলি এই সপ্তাহের শুরুতে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছিল, করোন ভাইরাস প্রাদুর্ভাবে হওয়া লকডাউনের কারণে ঋণণদাতাদের একীকরণের প্রকল্পগুলি আপাতত স্থগিত করার জন্য। তবে গত বৃহস্পতিবার অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছিলেন যে সরকারি ব্যাঙ্কগুলির একীকরণের পরিকল্পনাটি অনেক আগেই করা ছিল এবং করোনা ভাইরাসের মহামারীর ফলে দেশের অর্থনীতির পরিস্থিতি মন্দা থাকার ফলে এই নিয়ম ১ এপ্রিল থেকেই কার্যকর হবে। এই প্রকল্প অনুসারে ১) অন্ধ্র ব্যাঙ্ক ২) কর্পোরেশন ব্যাঙ্ক ৩) পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক ৪) ওরিয়েন্টাল ব্যাঙ্ক অফ কমার্স ৫) ইউনাইটেড ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া ৬) সিন্ডিকেট ব্যাঙ্ক ৭) ক্যানারা ব্যাঙ্ক ৮) ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্ক ৯) এলাহাবাদ ব্যাঙ্ক ১০) ইউনিয়ন ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া এর আওতায় রয়েছে।

মিউচুয়াল ফান্ড

এখনও অবধি মিউচুয়াল ফান্ড এবং দেশীয় সংস্থাগুলি থেকে পাওয়া লাভের উপর ডিডিটি আরোপ করা হয়েছে। যাতে ১০ লক্ষ টাকা লভ্যাংশের জন্যও কর ছাড় ছিল। তবে মিউচুয়াল ফান্ড থেকে দেশীয় সংস্থাগুলির প্রাপ্ত লভ্যাংশগুলি তাদের আয়ের পরিমান হিসাবে আয়কর হিসাবে ট্যাক্স আরোপ করা হবে। সেই হিসেবে যদি এক বছরে প্রাপ্ত মোট লভ্যাংশ ৫০০০ টাকার বেশি হয়, সে ক্ষেত্রে ১০ শতাংশ টিডিএস চার্জ করা হবে।

পেট্রোল ও ডিজেলের শুল্ক

বুধবার থেকে পেট্রোল ও ডিজেলের শুল্ক কার্যকর হবে। পেট্রোলের ট্যাক্স ৩২ শতাংশ থেকে ৩৫ শতাংশে বেড়েছে ফলে প্রতি লিটারের দাম বেড়েছে ১.৬। ডিজেল শুল্ক ২১ শতাংশ থেকে ২৪ শতাংশে বেড়েছে।

ঋণের সুদ

এই বছর ঋণের সুদে ১,৫ লক্ষ টাকার কর ছাড় অব্যাহত রাখা হয়েছে যদি বাড়ি মালিককে ৪৫ লক্ষ টাকারও কম দামে বাড়ি কিনতে হয়। এটি ৩১ মে, ২০২১ সালের মধ্যে বিক্রয়ের জন্য সাশ্রয়ী মূল্যের বাড়িগুলিতে প্রযোজ। আয়কর আইনের ৮০ ধারা ইইএর জন্য কর ছাড়ের ব্যবস্থা রয়েছে।

টিডিএস

স্টার্টআপ সংস্থাগুলি তাদের কর্মীদের বা কর্মচারী স্টক ওনারশিপ প্ল্যান (আইএসওপি) দ্বারা প্রদত্ত শেয়ারগুলির জন্য টিডিএস করতে হবে না। কর্মচারী সংস্থা ছেড়ে চলে গেলে বা স্টক বিক্রি করে বা স্টক ইস্যু করলে ৫ বছরের শেষে টিডিএস কেটে নেওয়া যেতে পারে।