করোনা মোকাবেলায় সারা দেশ জুড়ে লকডাউন। বেশিরভাগ অংশের অফিসের কাজ চলছে বাড়ি থেকে। অথবা লকডাউনে সময় কাটছে মোবাইলে। আর এই দুয়ের ক্ষেত্রেই নেট সার্ফিং এর ব্যবহৃত হচ্ছে বাড়ির ওয়াইফাই রাউটার। লকডাউনের ফলে বেড়ে গিয়েছে ইন্টারনেট এর ব্যবহারও। ফলে প্রথম থেকে স্লো নেটওয়ার্কের সমস্যা ভুগতে হয়েছে। এরপর দেখা দিল আরও এক সমস্যা। লকডাউনের সুযোগ নিয়ে হ্যাকাররা ফাঁদ পাতছে নামীদামি সংস্থার ওয়াইফাই রাউটারে।

আরও পড়ুন- আকর্ষণীয় ক্যামেরা-সহ লঞ্চ হল এমআই১০ লাইট, রইল এই ফোনের বিস্তারিত

সর্বভারতীয় সংস্থার এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, হ্যাকারা ওয়াইফাই রাউটারগুলি হ্যাক করে নিয়ে তার ডিএনএস বদলে দিচ্ছে। এর ফলে যেটা হচ্ছে আপনি যখনই কোনও অ্যাপ ডাউনলোড করতে যাবেন তার বদলে অন্য অ্যাপ ডাউনলোড হয়ে যাবে। আর যদি আপনার ওয়াইফাই রাউটার একবার হ্যাক হয়ে যায় সেখান থেকে আপনার সিস্টেম তা হতে পারে ডেস্কটপ বা ল্যাপি বা মোবাইল থেকে যাবতীয় তথ্য হ্যাকারা সহজেই ব্যবহার করতে পারবে। সম্প্রতি করোনা ভাইরাস সম্পর্কিত ভুয়ো বেশ কিছু অ্যাপ ডাউনলোড করে সমস্যা পড়তে হয়েছে ডি-লিঙ্ক ও লিঙ্কসিস রাউটার ব্যবহারকারীরা।

আরও পড়ুন- করোনা ভাইরাস ঠেকাতে জীবানুমুক্ত রাখুন আপনার স্মার্টফোন, জেনে নিন সহজ উপায়

শুধু এই নয় এই হ্যাকারদের কারণেই সাধারণ মানুষ করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত যাবতীয় ভুয়ো তথ্য পাচ্ছেন, এমনটাই জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। কারণ হ্যাকারদের কারণেই ভুয়ো অ্যাপ ডাউনলোডের মাধ্যেমে এই সাধারণ মানুষকে বারবার সমস্যায় পড়তে হয়েছে। সাইবার বিশেষজ্ঞদের মতে, এই কারণেই ওয়াইফাই রাউটারের পাসওয়ার্ড খুব সহজ থাকলেই তা সহজে হ্যাকারা অক্সেস করতে পারে। এর ফল হতে পারে মারাত্মক। কারণ বর্তমানে আমাদের প্রায় সকলের মোবাইলে ব্যঙ্কিং থেকে শুরু করে যাবতীয় প্রয়োজনীয় নথি থাকে। যা সহজেই হ্যাক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই ওয়াইফাই রাউটার ব্যবহারের ক্ষেত্রে কোনও অ্যাপ ডাউনলোডের সময় খুব সচেতন থাকা প্রয়োজন। সেই সঙ্গে পাসওয়ার্ড কিছু দিন পর পর বদলে ফেলা উচিৎ।