করোনা আতঙ্কে লকডাউন সারা দেশ কাঁপছে রাজ্য। ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। করোনা থেকে বাঁচতে তাই সকলকে ঘরে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে সরকারের তরফ থেকে। ওয়াল্ডোমিটারের পরিসংখ্যান অনুযায়ী এখনও অবধি সারা বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৭,৮৭,২৩১ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৩৭, ৮৪৩ জনের। সারা দেশে এই মুহূর্তে আক্রান্তের সংখ্যা ১৩৪৭ জন, আর মৃত্যু হয়েছে ৩২ জনের। রাজ্যে আক্রান্তের ইতিমধ্যে এই মারণ রোগে আক্রান্তের সংখ্যা ২২। এমন এক পরিস্থিতিতে সকলকে সুরক্ষিত থাকতে বাইরে বেরোলে মাস্ক ব্যবহার, বার বার সাবান দিয়ে হাত ধোয়া ও সেই সঙ্গে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্য়বহার করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফ থেকে। 

আরও পড়ুন- লকডাউনে সুখবর, ঘরবন্দি গ্রাহকদের জন্য দ্বিগুণ ডেটার অফার দিচ্ছে জিও

তবে জানলে অবাক হবেন হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারের বিশেষ কিছু বিধি রয়েছে। কারণ এই হ্যান্ড স্যানিটাইজারে অ্যালকোহলের পরিমাণ বেশি থাকে। আর সেই কারণেই করোনার মত ভাইরাসের নিয়ন্ত্রণে রক্ষা করে। কারণ করোনা ভাইরাস দূর করতে বার বার ৯১ শতাংশ  আইসোপ্রোপাইল অ্যালকোহল বা রাবিং অ্যালকোহল রয়েছে এমন হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারের কথা বলা হয়েছে। তবে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু সতর্কতা অবশ্যই মেনে চলা উচিৎ। না হলে হতে পারে মারাত্মক বিপদ।

আরও পড়ুন- লকডাউনে বাড়িতে থেকে শ্লেষ্মাজনিত সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে ভরসা রাখুন অব্যর্থ এই ঘরোয়া পথ্যে

যেহেতু এই হ্যান্ড স্যানিটাইজার লাগিয়ে আগুনের সামনে একেবারেই যাওয়া উচিত নয়। কারণ  হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৯১ শতাংশ  আইসোপ্রোপাইল অ্যালকোহল থাকার কারণে চট করে আগুন লেগে যাওয়ার মত বিপদ ঘটে যেতে পারে। বিশেষ করে রান্নাঘরে যাওয়ার আগে কখনোই  হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করবেন না। প্রয়োজনে বার বার সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে দিন। করোনা ভাইরাস সাবান দিয়ে হাত ধুলেও একইভাবে কাজ করে। তাই অবশ্যই মাথায় রাখুন এই বিষয়। এর ফলে হাত পুড়ে যাওয়ার মত বিপদ ঘটে যেতে পারে। সুরক্ষিত থাকুন বাকিদের সুরক্ষিত থাকতে সাহায্য করুন।