বিশ্বনাথ দাস, হাওড়া- করোনা আতঙ্কের মাঝে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক ছন্দ ফিরছে জনজীবন।  বিধি নিষেধের কড়াকড়ির মাঝেও ভক্তদের আনাগোনা বাড়ছিল বেলুড় মঠে। তবে সংক্রমণের আশঙ্কা ফের তালা পড়েছে মন্দিরে। বেলুড় মঠের তরফে জানানো হয়েছে, দুর্গা পুজোর আয়োজনে কোনও খামতি থাকবে না। প্রতি বছর যেমন নিয়ম মেনে পুজো হয়, এই বছরও তেমনি বৈদিক মতেই হবে দুর্গাপুজো। সন্ধিপুজো-কুমারী পুজো, বাদ যাবে না কিছুই। 

তবে মঠের তরফ থেকে জানানো হয়েছে করোনা প্রকোপের কারণে পুজো আয়োজন করা হচ্ছে মূল মন্দিরে। বাইরে কোনও মণ্ডপ তৈরি করা হবে না। ফলে বাইরে থেকে আগত দর্শনার্থীরা পুজো দেখতে পারবেন না এই বছর। পুজো দেখতে হবে প্রযুক্তির সাহায্য মঠের নিজস্ব ওয়েবসাইটে। করোনা পরিস্থিতিতে বেলুড় মঠের দুর্গা পুজোয় এ বছর দর্শনার্থীদের প্রবেশ বন্ধ থাকছে। মঙ্গলবার পুজোর বিষয়ে বেলুড় মঠের সন্ন্যাসীদের সঙ্গে বৈঠক করেন হাওড়া সিটি পুলিশের কর্তারা। ২০০০ সাল পর্যন্ত মঠের মূল মন্দিরের ভিতরেই পুজো হত। এ বছর সিদ্ধান্ত হয়েছে, করোনা পরিস্থিতিতে ফের মূল মন্দিরের ভিতরেই আবারও করা হবে পুজোর আয়োজন। 

অতিমারির পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে এই বছর পুজোয় কোনও প্রকার দর্শনার্থী বেলুড় মঠে প্রবেশ করবে না বলে জানা গিয়েছে। কোনও প্রকার প্রসাদও বিতরণ করা হবে না। তবে প্রতি বছরের মতো কুমারী পুজো হবে। সেখানেও ভক্ত ও দর্শনার্থীরা প্রবেশ করতে পারবেন না। প্রতি বছর কুমারীকে সন্ন্যাসীরা কোলে করে পুজোর মঞ্চে নিয়ে আসেন। এই বছর কুমারীর পরিবারের সদস্যরাই তাঁকে নিয়ে আসবেন মঞ্চে আর সম্পূর্ণটাই দেখা যাবে বেলুড় মঠের ওয়েবসাইটে।  https://belurmath.org/