এই সময়ে স্মার্টফোনবিহীন জীবন অকল্পনীয়।  উন্নতমানের প্রযুক্তি ও ব্যাটারি থাকা সত্ত্বেও কখনো এমন পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয় যখন মনে হয়, ইস একটা পাওয়ার ব্যাঙ্ক থাকলে নিজের ফোনের চার্জ সংক্রান্ত চিন্তা থেকে রেহাই পাওয়া যেত! অনেকগুলি ব্র্যান্ড এমন সব লোভনীয় পাওয়ার ব্যাঙ্ক নিয়ে এসেছে যা সবার ক্রয়ক্ষমের আওতার মধ্যে রয়েছে।

মি ১০০০০এমএএইচ পাওয়ার ব্যাঙ্ক ২ আই

কালো, লাল, নীল রঙের বিকল্পে পাওয়া যাবে এই ১০০০০ এম এ এইচ পাওয়ার ব্যাঙ্ক । দাম - ৮৯৯ টাকা। এই পাওয়ার ব্যাঙ্কে রয়েছে ১৮ ডব্লু দ্রুত চার্জিং সাপোর্ট। ৫ভি/২এ, ৯ভি/২এ এবং ১২ভি/১.৫এ চার্জিং আউটপুট সাপোর্ট করে এটি।  এর মধ্যে দুটি ইউএসবি আউটপুট আছে যার দ্বারা দারুনভাবে ৪.৫ ঘন্টা চার্জ দেওয়া যায়।

রিয়ালমি  ১০০০০এমএএইচ পাওয়ার ব্যাঙ্ক

ধূসর, হলুদ, লাল এই তিনটি রঙে পাওয়া যায় এই পাওয়ার ব্যাঙ্কটি। দাম- ১২৯৯ টাকা।  এতেও  ১৮ ডব্লু দ্রুত চার্জিং সাপোর্ট আছে। টাইপ-সি ও টাইপ-এ পোর্ট রয়েছে এখানে। এই পাওয়ার ব্যাঙ্কের অন্যতম প্রধান বৈশিষ্ট্য হল পাওয়ার ডেলিভারি যার দ্বারা আপনি নিজের ল্যাপটপেও চার্জ দিতে পারবেন।

আইবল ১০০০০এমএএইচ পাওয়ার ব্যাঙ্ক

কালো, নীল, শ্যাম্পেন সোনালি ও রোজ গোল্ড রঙে পাওয়া যায় আইবল পাওয়ার ব্যাঙ্ক। দাম- ৬৯৯ টাকা। ১০০০০ এম এ এইচ ব্যাটারি ছাড়াও এই পাওয়ার ব্যাঙ্কে রয়েছে ২.৪ এ আউটপুট। এখনে দুটি টাইপ-এ পোর্ট রয়েছে আউটপুট চার্জের জন্য এবং একটি মাইক্রো ইউএসবি পোর্ট রয়েছে এবং টাইপ-সি পোর্ট আছে যার মাধ্যমে ইনপুট চার্জিং হয়। এই পাওয়ার ব্যাঙ্কের মাধ্যমে ৬-৭ ঘন্টা চার্জ দেওয়া যায়।   

অ্যাম্ব্রেন  ১০০০০এমএএইচ পাওয়ার ব্যাঙ্ক

কালো, সাদা ও নীল রঙের বিকল্প রয়েছে। এই পাওয়ার ব্যাঙ্কে আছে ১০০০০ এম এ এইচ লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি। দাম- ৬৪৯ টাকা। ৫-৭ ঘন্টা চার্জ দেওয়া যায় এবং এই পাওয়ার ব্যাঙ্কে দুটি পোর্ট- ইউএসবি টাইপ এ- আউটপুটের জন্য এবং একটি মাইক্রো ইউএসবি পোর্ট ইনপুটের জন্য।

পোর্ট্রোনিকস ১০০০০এমএএইচ পাওয়ার ব্যাঙ্ক

এই পাওয়ার ব্যাঙ্কের দাম- ৬৯৯ টাকা। এর মধ্যে দুটি ইউএসবি পোর্ট আছে যা ২.১ এ অবধি ম্যাক্সিমাম কারেন্ট সাপোর্ট করে। এই পাওয়ার ব্যাঙ্কে দুটি ইনপুট অপ্শন আছে- মাইক্রো-ইউএসবি এবং টাইপ সি পোর্ট।