ইতিমধ্যেই করোনা আতঙ্কে জেরবার বিশ্ববাসী । দেশজুড়ে যেভাবে করোনা আতঙ্ক ছড়াচ্ছে, তাতে সংকট আরও বাড়ছে । তার উপর ফোন করলেই কাশির আওয়াজ। তারপর করোনা নিয়ে সচেতনার বার্তা। বর্তমানে এই ছবিটাই সবজায়গায় ফুটে উঠেছে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ নিয়ে মোবাইল থেকে ল্যান্ড ফোন সবজায়গাতেই এই একই অবস্থা। বর্তমানে এই আতঙ্কের মধ্যেই সচেতনার বার্তা অনেক গ্রাহকের কাছেইন বিরক্তির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। কারণ ফোন করতে গেলেই কমপক্ষে ৩০ সেকেন্ডের অপেক্ষা। জরুরি কোনও ফোন করতে গেলে ৩০ সেকেন্ড পর্যন্ত  অপেক্ষা করতেই হচ্ছে। কখন বার্তা শেষ হবে তারপর ফোনের কানেকশন চালু হবে।  এই উদ্যোগ নিয়ে গ্রাহকদের মধ্যে কতটা সচেতনতা তৈরি হচ্ছে সে নিয়েই প্রশ্ন উঠছে।

আরও পড়ুন-করোনা নিয়ে উদ্বিগ্ন দেশবাসী, সচেতনতা বাড়াতে বাজারে এল নয়া অ্যাপ...


ফোন করলেই যে বার্তা শোনা যাচ্ছে তা শুধু ইংরেজি বা হিন্দি ভাষায়। আর তা কতটা প্রভাব ফেলছে জনসাধারণের উপর তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে  গ্রাহক মহলে। এই ধরণের প্রচার অনেকেই অপছন্দের কারণ হয়ে উঠছে। গত শনিবার থেকেই এই পরিষেবা শুরু করা হয়েছে। করোনা মোকাবিলায় কী করা উচিত, আর কী উচিত নয়, এই নিয়েও এসএমএস আসছে গ্রাহকদের মোবাইলে। সরকারি সূত্রে জানা গিয়েছে, এই প্রচার শুধু মোবাইলে নয়, রেল, মেট্রো রেল স্টেশন, বিমানবন্দর, বাস টার্মিনাসের মতো বিভিন্ন জায়গাতেও প্রচার চলছে। আর যা নিয়েই অভিযোগ  ক্রমশ বাড়ছে।  কারণ বার্তাটি এতটাই দীর্ঘ যে হেল্পলাইন নম্বরও স্পষ্ট শোনা যাচ্ছে না। ফোন করার পর কাশির শব্দ শুনেই যেন উদ্বেগ আরও বেশি বেড়ে যাচ্ছে। যাকে ফোন করা হচ্ছে মনে হচ্ছে তিনিই যেন কাশছেন। তবে এই সমস্যাটা থেকে মুক্তিরও একটি ছোট্ট উপায় রয়েছে। বার্তা চলাকালীন 'স্টার' বাটন টিপে দিলেন  বার্তাটি বন্ধ হয়ে যাবে। এবং সরাসরি সংযোগ চালু হয়ে যাবে। 

আরও পড়ুন-করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের লক্ষণগুলো কী কী, জানাল সমীক্ষা...

করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশই যেন বাড়ছে। সারা বিশ্ব জুড়ে দাঁপিয়ে বেড়াচ্ছে এই করোনা ভাইরাস। মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস। ভারতেও হানা দিয়েছে এই মারণ ভাইরাস। একের পর এক আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ যেন বেড়েই চলেছে।আবারও এই নিয়ে উদ্বেগ শুরু হয়েছে সকলের মধ্যে। ইতিমধ্যেই  প্রায় ১০০টিরও বেশি দেশে ছড়িয়ে গেছে এই ভাইরাস। ভারতেও ক্রমশ বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। করোনা থেকে সুরক্ষিত থাকতে নানা পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। সাধারণ  মানুষও তা মেনে চলার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এন৯৫ মাস্ক থেকে শুরু করে হ্যান্ডওয়াশ কোনওকিছুই বাদ যাচ্ছে না তালিকা থেকে। তারপরেও করোনা আতঙ্ক যেন মানুষের মন থেকে সরছে না। কৌতুহল যেন থেকেই যাচ্ছে। তাই আমজনতার সেই কৌতুহল মেটাতে বাজারে এল নতুন অ্যাপ। পাঞ্জাবের মুখ্যসচিব করণ অবতার সিং এই নতুন অ্যাপের নাম ঘোষণা করেছেন। নয়া কোভা পাঞ্জাব নামের অ্যাপটি মানুষকে সচেতন করবে এই করোনা ভাইরাস থেকে। সরকারের তরফেই এই অ্যাপ তৈরি করা হয়েছে। এই অ্যাপের মাধ্যমে সাধারণ মানুষ কী কী জানতে পারবেন তাও জানানো হয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, এই করোনা ভাইরাসের লক্ষণগুলি কী কী, কীভাবে নিজেকে এই ভাইরাস থেকে সুরক্ষিত রাখবেন, আপনার বাড়ির কাছাকাছি কোন কোন হাসপাতাল রয়েছে, জেলার নোডাল অফিসারের ঠিকানা- সব কিছুই পেয়ে যাবেন  এই অ্যাপে । ইতিমধ্যেই করোনা আতঙ্কে জেরবার বিশ্ববাসী । দেশজুড়ে যেভাবে করোনা আতঙ্ক ছড়াচ্ছে, তাতে সংকট আরও বাড়ছে । সেই দুশ্চিন্তা কমাতেই কোবিড-১৯ ভাইরাস সম্পর্কে মানুষকে সচেতন করতে এবং এর সংক্রমণ থেকে দূরে থাকার জন্যই এই প্রয়াস সরকারের। অ্যান্ড্রয়েড প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করে নেওয়া যাবে এই অ্যাপ। প্রত্যেককেই অ্যাপটি নিজেদের স্মার্টফোনে ডাউনলোড করে রাখার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। যাতে সরকারের তরফে দেওয়া সমস্ত আপডেট এবং নির্দেশিকা চটজলদি পেয়ে যান ইউজাররা।