ফেব্রুয়ারি মাস পড়তে না পড়তেই শহরজুড়ে প্রেমের মরশুম। কয়েকদিন আগে থেকেই শুরু হয়ে গেছে এই ভালবাসার দিন উৎযাপন। শহরে আকাশে, বাতাসে , চারিদিকে শুধু প্রেম প্রেম রব।  রোজ ডে, প্রপোজ ডে , চকোলেট ডে,টেডি ডের পর এবার পালা প্রমিস ডে । আজ হল সেই বিশেষ দিন। নিজের মনের মানুষকে মনের কথা জানানোর আজকের দিনটা সবথেকে ভাল। আর প্রেমিক -প্রেমিকাদের ঘনিষ্ঠ হওয়ার মোক্ষম সময় হল এটি। কিন্তু এই ভালবাসার দিনগুলোর মধ্যেও ভয় ধরাচ্ছে করোনা ভাইরাস। অনেকেই হয়তো ভাবছেন ভালবাসার সঙ্গে করোনা ভাইরাসের কী সম্পর্ক। আর এর ভিতরেই লুকিয়ে রয়েছে আসল রহস্য।

আরও পড়ুন-করোনা আক্রান্তে নিখোঁজ সাংবাদিক, হু হু করে বাড়ছে মৃত্যু মিছিল...

এ বছরের ভ্যালেন্টাইনে আর ঘনিষ্ঠ চুম্বন  করা যাবে না। কারণ চুম্বনেও নাকি ছড়াতে পারে করোনা ভাইরাস।  একজনের মুখের ভিতরের লালা অন্যজনের শরীরে প্রবেশ করলে তার থেকেও ছড়াতে পারে করোনা ভাইরাস তেমনটাই মনে করছেন ইএনটি বিশেষজ্ঞরা। ফ্ল্যাবিও প্রজাতির এই ভাইরাস অত্যন্ত ছোঁয়াচে। যা মুহূর্তের মধ্যে একজনের থেকে আরেকজনের শরীরে ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস।  মানুষের নিঃশ্বাস প্রশ্বাসের সঙ্গেই ছড়িয়ে যাচ্ছে এই রোগের জীবানু। সুতরাং চুম্বন থেকেও যে এই রোগের জীবাণু মুহূর্তের মধ্যে শরীরে ছড়িয়ে যেতে পারে তা নিঃসন্দেহে বোঝাই যাচ্ছে। চিকিৎসকদের নিদান অনুযায়ী এই বছর ভালবাসা দিবসে চুমু থেকে দূরে থাকাটাই শ্রেয়।

আরও পড়ুন-ভ্যালেন্টাইন ডে-র স্পেশ্যাল লুক কীভাবে পাবেন, রইল কিছু সহজ টিপস...

করোনা ভাইরাসের হানায় ভয়ে গুটিয়ে রয়েছে বিশ্ববাসী। গোটা বিশ্বের কাছে এক ভয়ঙ্কর নাম এই করোনা। এই নামটা শুনলেই প্রত্যেকেই যেন আতঙ্কিত। কোনওভাবেই আটকানো যাচ্ছে না এই ভাইরাসকে।  সার্সের থেকে ভয়ঙ্কর আকার নিয়েছে এই করোনা ভাইরাস। হাঁচি, কাশি থেকে যেমন এই ভাইরাসের জীবাণু ছড়াচ্ছে ঠিক তেমনই মুখের লালারস থেকেও ছড়াতে পারে এই করোনা ভাইরাস। তাই চিকিৎসকরা প্রেম দিবসের দিনও সতর্কতা অবলম্বন করতে বলছেন। দেখা করা, ঘুরতে যাওয়া সব ঠিকাছে এর মধ্যে মাস্কটা মাস্ট। কিন্তু  চুম্বনটা কোনওভাবেই যেন না আসে দুজনের মধ্যে। ইতিমধ্যেই হু হু করে বাড়ছে করেনা ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা। এই আতঙ্কে কাঁপছে গোটা দেশ।