পুজো এলেই মনে আসে পার্লারের কথা। যাই হয়ে যাক পুজোতে নিজেকে দেখাতে সব থেকে সুন্দর। চুল সৌন্দর্যের একটা বিশেষ অঙ্গ। পুজোতে সবার নজর কাড়তে হলে চাই আকর্ষণীয় হেয়ার কাট। আর সেই জন্যই পুজোর আগে একটা সুন্দর হেয়ার কাট করতে সবাই ছোটে পার্লারে। কিন্ত পার্লারে গিয়ে পড়তে হয় ধন্ধে। কোন হেয়ার কাট করা যায় সেটা ভাবতেই সময় চলে যায়। পার্লারে গিয়ে এত না ভেবে পুজোর আগে একবার দেখেনিন কোন হেয়ার কাট আপনার জন্য একেবারে পারফেক্ট। কোন হেয়ার কাট আপনার মুখের সঙ্গে মানানসই সেটাই জেনেনিন এবার। 

(১) যদি আপনার মুখ হয় গোলাকৃতি তবে আপনার জন্য লেয়ার কাট একবারে পারফেক্ট। এছাড়াও করতে পাড়েন ফ্রাঙ্কি ব্যাঙস, পিক্সি। কিন্তু ভুলেও শর্ট বব বা বব কাট করবেন না। এই হেয়ার কাটটি আপনার জন্য একেবারেই নয়। 

(২) যদি মুখের গড়ন হয় হার্ট শেপ তাহলে আপনার মুখে বব কাট বেশ ভালো লাগবে। বব ছাড়াও আপনি কাটতে পারেন পিক্সিও। পিক্স কাট একটি অত্যন্ত স্মার্ট একটি হেয়ার কাট। আর যদি একটু অন্যরকম হেয়ার কাটের কথা ভাবেন তাহলে পিক্সির জুড়ি মেলা ভার। 

আরও পড়ুন- পায়ের বেহাল দশা, পুজোর আগে ঘরে বসে পায়ের যত্ন নিতে জেনে নিন কি করবেন

(৩) ডিম্বাকৃতির মুখের সঙ্গে প্রায় সব হেয়ার কাট বেশ ভালো মানায়। যদি আপনি  ডিম্বাকৃতি মুখের অধিকারিনী হন আর ছোটো চুল পছন্দ করেন তবে ব্লান্ট বব বা বব কাটতে পারেন। যদি পছন্দ হয় বড়ো চুল তাতেও কোনও অসুবিধা নেই তাহলে কাটেই পারেন লং লেয়ার। সেই সঙ্গে চুলটা যদি কার্ল করতে পারেন তাহলেতো আর কথাই নেই কেউ আপনার থেকে চোখ ফেরাতে পারবেন না।

আরও পড়ুন- পুজোর আগে চাই জেল্লাদার ত্বক, মাথায় রাখুন এই বিষয়গুলি

(৪) যদি আপনার মুখ আয়তাকার হয় তবে আপনি করতে পারেন রাউন্ড ফ্রিন্জেস বা ব্লান্ট কাট। এটি আপনার মুখের সাথে বেশ ভালো মানাবে। যদি কার্লি হেয়ার পছন্দ হয় তাহলে চুলটা কার্ল করে নিতেই পারেন এতে বেশ অন্যরকম লাগবে আপনাকে।

(৫) মুখের আকৃতি যদি আপনার লম্বাটে হয় তবে সেক্ষেত্রে এমন কিছু হয়ার কাট করুন যাতে আপনার মুখ কিছুটা ভরাট লাগে। এই ধরনের মুখে ক্ষেত্রে স্ট্রেট চুল একেবারেই ভালো লাগেনা। সেক্ষেত্রে আপনি ভলিউম লেয়ার পারেন যাতে মুখটা বেশ ভরাট লাগবে। যেকোনও শর্ট হেয়ার কাট করতে পারেন তাতে বেশ ভালো লাগে। এছাড়াও করতে পারেন ফ্রাঙ্কি ব্যাঙস। সেটাও বেশ ভালো লাগবে আপনার মুখের সঙ্গে।