পুজো প্রায় এসেই গেল সেই সঙ্গে শুরু হয়ে গিয়েছে তার প্রস্তুতি। এখন পার্লারে গেলেই দেখা যাচ্ছে ভীড়। ছোটো বড় সব পার্লারেই এখন ছবিটা একই। মুখের যত্ন নেওয়া হলেও পায়ের যত্ন নেওয়ার কথা প্রায় কারোরই মনে থাকেনা। অথচ আমাদের পা সব থেকে বেশি কাজ করে ফলে পায়ের যত্ন নেওয়া সব থেকে জরুরি। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখা যায় মহিলাদের পা ফাটার সমস্যা। সেই সমস্য থেকে শুরু করে পুজোর আগে ঘরে বসে নিজের পা দুটোকে সুন্দর করে তুলতে এক নজরে জেনে নিন কি করবেন-

(১) বেকিং সোডা: বেকিং সোডা শুনে অবাক হচ্ছেন কি? ভাবছেনকি এটিতো কেক বানানোর সময় ব্যবহার হয়ে থাকে। কিন্তু এই বেকিং সোডার আরও অনেক উপকারী গুণ আছে। এই বেকিং সোডা পায়ের যত্নের ক্ষেত্রে বেশ কার্যকরী। ঈষদুষ্ণ গরম জলে ২ টেবিল চামচ বেকিং সোডা দিয়ে তাতে আধঘন্টা পা টাকে ভিজিয়ে রাখুন। আরও ভালো উপকার পেতে এতে কিছুটা নুন ফেলে দিন। পুজোর আগে রোজ যদি এই ভাবে নিজের পা দুটোকে ধুয়ে নিতে পারেন তাহলে অনেকটাই পায়ের সমস্য থেকে মুক্তি পাবেন।

আরও পড়ুন- পুজোর আগে চাই জেল্লাদার ত্বক, মাথায় রাখুন এই বিষয়গুলি

(২) অ্যাপেল সিডার ভিনিগার: যদি আপনার পা ফাটার সমস্যা থেকে থাকে তবে ব্যবহার করতে পারেন অ্যাপেল সিডার ভিনিগার। পা ফাটার সমস্যার জন্য অ্যাপেল সিডার ভিনিগার বেশ কার্যকরী। ঈষদুষ্ণ গরম জলে বেশ কিছুটা অ্যাপেল সিডার ভিনিগার দিয়ে দিন। তারপরে সেই জলে আপনার পা ভিজিয়ে রাখুন। এই ভাবে যদি আপনি আপনার পা পরিষ্কার করতে পারেন তাহলে খুব তাড়াতাড়ি পা ফাটার সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন। 

(৩) স্ক্রাব: পায়ের জমে থাকা ময়লা কে বের করে আনতে স্ক্রাবার একটি অত্যন্ত প্রয়োজনীয় জিনিস। এই স্ক্রাবার বানাতে লাগবে ওটমিল আর লেবুর রস। এর জন্য প্রথমে ওটমিল আর লেবুর রস মিশিয়ে একটা স্ক্রাবার বানিয়ে নিন। তার পরে সেই স্ক্রাবারটা দিয়ে ভালো করে পা প্রথমে স্ক্রাব করে নিন। ৩০ মিনিট এটা লাগিয়ে রাখার পরে ঠান্ডা জল দিয়ে ভালো করে পা ধুয়ে নিন। লেবুর রসের বদলে আপনি জোজোবা অয়েল বা ভেসলিনও ব্যবহার করতে পারেন। এই পদ্ধতিতে বেশ কিছুদিন পা পরিষ্কার করলে পুজোর আগে মুখের সঙ্গে আপনার পা দুটিও সবার নজর কাড়বে।

আরও পড়ুন- মুখের সঙ্গে মানানসই হেয়ার কাট, পুজোয় নিজেকে সাজিয়ে তুলুন অন্য ভাবে

(৪) দুধ: পা পরিষ্কারতো হল এবার এই পায়ের জন্য ময়েশ্চারাইজারেরও প্রয়োজন। দুধের মত ভালো ময়েশ্চারাইজার আর কিচ্ছু হতে পারেনা। তাই কিছুটা গরম জলে এক কাপ দুধ দিয়ে পা দুটোকে ভিজিয়ে রাখুন। কিছুক্ষণ পরে পা তুলে নিয়ে তারপরে ভালো করে মুছে নিন পা দুটো। দেখবেন পা নরম হয়ে গেছে। এটা যদি প্রতিদিন করতে পারেন তাহলে আপনার আর পেডিকিওর করার প্রয়োজন হবে না।