বাঙালি মানেই খাওয়া-দাওয়া! খানা-পিনার আয়োজনে বাঙালির জুড়ি মেলা ভার। আৎ বর্ষাকালে পাতে চিংড়ির কোনও পদ থাকলে তো কথাই নেই! ভোজনরসিকদের কাছে চিংড়ির কদরই আলাদা! ডাব চিংড়ি, পোস্ত চিংড়ি, মালাই চিংড়ির মতো লোভনীয় পদ সামনে পেলে কী আর ছাড়া যায়! চিংড়ির নানা মুখরোচক জনপ্রিয় পদের মধ্যে অন্যতম একটি হল, চিংড়ির কালিয়া। রেসিপি জেনে বানিয়ে ফেলুন আজই। আর ঘরোয়া দাওয়াত জমে উঠুক চিংড়ির কালিয়া আর পোলাও-এর যুগলবন্দিতে।

চিংড়ির কালিয়া বানাতে লাগবে:—

চিংড়ি মাছ (মাঝারি বা বড়): ১২ থেকে ১৫টি
কাঁচালঙ্কা: ৪টি
লবঙ্গ: ২-৩টি
তেজপাতা: ২টি
পিঁয়াজ কুঁচি: ২ কাপ
আদা বাটা: ১ চা চামচ
টম্যাটো কুঁচি: ২টি ছোট
এলাচ: ২-৩টি
দারচিনি: সামান্য
হলুদগুঁড়ো: ২ চা চামচ
লাল লঙ্কার গুঁড়ো: স্বাদ অনুযায়ী
নুন: স্বাদ অনুযায়ী
চিনি: ১ চা চামচ
সরষের তেল: আন্দাজ মতো
গরম মশলা গুঁড়ো: ১ চা চামচ
লেবুর রস: ২ চা চামচ

যে ভাবে বানাবেন:—

প্রথমে চিংড়ি মাছ ভালো করে ধুয়ে নিন। তাতে অল্প হলুদ, লেবুর রস ও অল্প নুন দিয়ে মেখে ম্যারিনেট করে রেখে দিন ১০-১৫ মিনিট।
এরপর কড়ায় তেল গরম করে ম্যারিনেট করা চিংড়িগুলো ভালো করে ভেজে তুলে রাখুন।
এরপর একই তেলে গোটা গরম মশলা ফোড়ন দিয়ে পিঁয়াজ কুঁচি যোগ করুন।
পেঁয়াজ হালকা সোনালি রঙের হওয়া অবধি নেড়েচেড়ে নিন। এরপর এতে কাঁচা লঙ্কা কুঁচি ও আদা বাটা যোগ করে আবার নাড়তে থাকুন।
এরপর এতে একে একে হলুদ গুঁড়ো, লাল লঙ্কা গুঁড়ো দিয়ে ভাল করে কষতে থাকুন। 
রান্নার মাঝে মাঝেই অল্প গরম জল দিতে পারেন, যাতে মশলা লেগে না যায়।
মিনিট দুয়েক পর টম্যাটো কুচি দিয়ে আবার নাড়তে থাকুন যতক্ষণ না মশলা থেকে তেল ছাড়ছে।
এ বার এতে আগে থেকে ভাজা চিংড়ি মাছ দিয়ে দিন। অল্প নেড়ে প্রয়োজন মতো জল, নুন ও চিনি দিয়ে ঢাকা দিয়ে ঢিমে আঁচে রান্না করুন।
১০-১২ মিনিট পর অল্প গরম মশলা আর সামান্য ধনেপাতা কুচি ছড়িয়ে আঁচ থেকে নামিয়ে নিন।
নামিয়ে নিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন জিভে জল আনা চিংড়ির কালিয়া।