বাঙালিরা ব্য়ঙ্গ করে বলেন বটে, যে কী রে লঙ্কা কান্ড বাধিয়ে এলি। এদিকে যার নাম ধরে এত কথা, তাঁকে ছাড়া বাঙালির রন্ধন প্রক্রিয়াও সম্পূর্ণ হয় না। বিশেষ করে বাঙালদের তো অন্য়তম পছন্দের এটা। যেটা মুখে পড়লে অনেকের চোখে জল এসে যায়, আর বাঙালদের আবার জিভে জল। আচ্ছা এবার বলেই দেওয়া যাক, যার সম্বন্ধে এত কথা বলা হচ্ছে, তিনি হলেন লঙ্কা। যার উপকারিতা অসামান্য়। লঙ্কায় প্রচুর পরিমাণে ক্যাপসাইসিন থাকে। লঙ্কা কিন্তু ভাতের পাতে কাঁচা, ভেজে অথবা রোস্ট করে, সব ভাবেই খাওয়া যায়। তাহলে জেনে নেওয়া যাক, লঙ্কা থেকে কী কী উপকারিতা পাওয়া যায়-

আরও পড়ুন, ফল নয়, ফলের খোসার রয়েছে হাজারো গুণ


১) লঙ্কায় ইনসুলিনের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে, ব্লাড সুগার বাড়তে দেয় না।

২) লঙ্কা খেলে দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

৩)  লঙ্কায় সাধারণ সর্দি-কাশি, ঠাণ্ডা লাগায় খুব কাজ দেয়।

৪) লঙ্কায়  প্রচুর পরিমাণে আয়রন থাকে।

৫) লঙ্কার মধ্য়ে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকে। ফলে শরীরের পাচনক্রিয়া ভালো হয়

৬) লঙ্কা আমাদের ভিটামিন সি এবং ই থাকায় ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়ায়।

আরও পড়ুন, ক্যান্সার থেকে ডায়াবেটিস, খুবই কার্যকরী ড্রাগন ফল

৭)  লঙ্কায় একটুও ক্যালোরি থাকে না, ফলে মেদ ঝরাতে সাহায্য করে। দেহের বিপাকের হার বাড়ায়।

৮) লঙ্কার মধ্য়ে যেহেতু প্রচুর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট থাকে, তাই এটি হার্টের পক্ষে খুব ভালো।

৯) লঙ্কার ভিতরে থাকা ভিটামিন কে, হাড় খয়ে যাওয়া রোগ বা অস্টিওপোরোসিস সারিয়ে তুলতে সাহায্য় করে। 

তবে যেকোনও কিছুই বেশি খেলে, তা ক্ষতিকর শরীরের জন্য়। তাই সেদিক থেকে লঙ্কাও বাদ পড়ে না। অতিরিক্ত খেলে ত্বক এবং পাকস্থলিতে এর প্রভাব পড়বে। এছাড়াও এটি বেশি খাওয়ার ফলে, গ্য়াসট্রিক আলচারের সমস্য়া তৈরি হতে পারে। তাই অবশ্য়ই স্বাদ বুঝে খেতে হবে লঙ্কা। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে কাঁচা লঙ্কার গুণই বেশি।