হাতে আর মাত্র কয়েক ঘন্টা। ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে কালীপুজোর প্রস্তুতি। এই দিনটিতে প্রত্যেকেই নিজের সাধ্যমতো বিভিন্ন রঙের আলো দিয়ে নিজের বাড়ি সাজিয়ে তোলে। আলোর উৎসবে মেতে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে শুধু বাজি ফাটালেই চলবে না। বাড়িকেই সাজিয়ে তুলতে হবে নতুন রূপে। ক্রিয়েটিভিটি কারও কারও সহজাত। আবার কারও কারও ক্ষেত্রে ইচ্ছে থাকলেই সবটা যেন গুছিয়ে উঠতে পারে না। আর তাদের আর চিন্তার কোনও কারণ নেই। খুব অল্প খরচের মধ্যে কীভাবে সাজিয়ে তুলবেন আপনার বাড়ির অন্দরসজ্জা। রইল তার কিছু টিপস।

বাহারি আলোর সাজসজ্জা
দীপাবলি মানেই আলোর উৎসব। যেদিকেই চোখ যায় সেদিকেই শুধু মাল্টিরঙের আলো। আলোর রোশানাইয়ে সেজে ওঠে গোটা বাড়ির চারদিক। আর এটাই হল বাড়ি সাজানোর মোক্ষম সময়। রাস্তায় প্রচুর বাহারি আলোর পসরা নিয়ে বসেছে, সেখান থেকেই আপনার পছন্দমতো কয়েকটি লাইট কিনে নিয়ে আসুন। এছাড়াও বাজার চলতি বা হাতে তৈরি করা কাগজের ল্যাম্পশেডও কিনতে পারেন। তার উপর মাল্টিরঙের আলো দিয়েও ঘর সাজাতে পারেন। এছাড়া নিজে হাতেও হ্যান্ডপেন্টেড কাচের মোমদানি বানাতে পারেন। এছাড়াও বিভিন্ন ডিজাইনের হ্যাঙ্গিং লন্ঠনও বাজারে খুব বিক্রি হচ্ছে সেগুলিও অনায়াসে কিনে নিতে পারেন। অনলাইনেও অল্প দামের মধ্যে এগুলি পেয়ে যাবেন।

ফুলসজ্জা
উৎসবের দিনে ফুল দিয়ে বাড়ি সাজাতে কার না ভাল লাগে। তবে দামের কথা চিন্তা করেই আমরা অনেকসময় পিছিয়ে যাই। কারণ কালীপুজোর দিন টাটকা ফুলের দাম অনেকটাই বেশি। তবে ফুল টাটকাই হোক বা আর্টিফিসিয়াল, এর সৌন্দর্যটাই আলাদা। টাটকা ফুলের পরিবর্তে কাগজের ফুল দিয়ে সাজিয়ে ফেলুন গোটা বাড়ি। বাড়ি ঢোকার প্রধান দরজাও সাজিয়ে ফেলুন ফুলের মালা দিয়ে। টাটকা ফুলের গন্ধ হয়তো পাবেন না ঠিকই, তবে ফুলের দিকে তাকালেই দেখলেই মনটা কেমন ভাল হয়ে গেছে। 

রঙ্গোলি
আলপনা ছাড়া যেমন লক্ষ্মীপুজো হয় না, ঠিক তেমনই রঙ্গোলি ছাড়াও অসম্পূর্ণ থাকে কালীপুজো। দীপাবলিকে আরও রঙিন করে তুলতে রঙ্গোলির কোনও জুড়ি নেই। ফ্রেবিক হোক বা অন্য কোনও রং কিংবা ফুল আপনার সাধ্যমতো বা আপনার পছন্দমতো ডিজাইন বেছে বানিয়ে ফেলুন আপনার রঙ্গোলি। আপনার রঙ্গোলিকে আরও সুন্দর করে তুলতে তার মাঝখানে বসিয়ে দিতে পারেন ছোট্ট ছোট্ট মাটির প্রদীপ। দেখবেন আপনার সমস্ত অন্ধকার দূর হয়ে যাবে মুহূর্তের মধ্যে।

টুকিটাকি দিয়ে অন্দরসজ্জা
বাড়িতে আমাদের অনেক চুড়ি থাকে। যা অনেকদিনের পুরোনো হয়ে গেছে, বা ছোট হয়ে গেছে। যেগুলি আর আমাদের কোনও কাজে লাগে না। সেই অব্যবহার্য চুড়ি দিয়ে আপনার বাড়ি সাজিয়ে তুলতে পারেন নিমেষের মধ্যে। চুড়িগুলিকে সুতো দিয়ে ভাল করে মুড়িয়ে নিন। তারপর লম্বা একটা বড় সুতোর মধ্যে চুড়িগুলিকে ঝুলিয়ে নিয়ে দরজার উপর টাঙিয়ে দিন। দেখবেন ঘরে  একটা নয়া লুকস ফিরে আসবে। চুড়ির পাশাপাশি প্রতিট দরজায় টাঙিয়ে দিতে পারেন নানা সাইজের ছোট বড় মাল্টিরঙের বাহারি ঘন্টা। উৎসবের মরশুমে পুরো ঘরটাই একটা অন্যরকম লাগবে। 

পর্দায় রঙের ছোঁয়া
ঘরের প্রতিটি পর্দায় থাকুক অভিনবত্বের ছোঁয়া। বিশেষ করে পুজোর দিনগুলিতে কালারফুল পর্দা লাগান, এতে মন ও মেজাজ বেশ ফুরফুরে থাকবে। এর পাশাপাশি বিছানার চাদরও ব্রাইট কালারের পাতুন। বদলে ফেলুন ঘরের কুশন কভার। উজ্জ্বল রঙের একরঙা, চান্দেরির, কিংবা মোটিফের কাজ করা কুশন লাগাতে পারেন। আলোর উৎসবের গৃহসজ্জায় নানা রঙের ছোঁয়ায় সাজিয়ে তুলুন আপনার অন্দরসজ্জা।