ফ্লিপকার্ট মানেই নয়া চমক। একের পর এক দুর্দান্ত চোখধাঁধানো সেল।  ইতিমধ্যেই করোনা আতঙ্কে জেরবার বিশ্ববাসী।  মানুষের সংস্পর্শেই সংক্রমিত হচ্ছে এই করোনা ভাইরাস । গোটা দেশে লকডাউন চলছে। সারা বিশ্বের মানুষ গৃহবন্দি হয়ে রয়েছে। আর এই লকডাউনের মধ্যে সাময়িকভাবে কাজ বন্ধ করল ফ্লিপকার্ট। আজ থেকেই আগামী ২১ দিনের জন্য দেশজুড়ে জারি হয়েছে লকডাউন। আর এই পরিস্থিতিতেই  পরিষেবা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিল ফ্লিপকার্ট। দেশজুড়ে তীব্র সংকটের মধ্যে প্রয়োজনীয় সামগ্রী মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেওয়ার কাজ চালিয়ে যাচ্ছিস ই-কর্মাস সাইটগুলো। কিন্তু লকডাউনের জেরে সম্পূর্ণ বন্ধের সিদ্ধান্ত নিল ফ্লিপকার্ট। তবে শুধু ফ্লিপকার্ট নয়, বিগ বাস্কেটও তাদের ডেলিভারি বন্ধ করল।

আরও পড়ুুন-করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, স্মার্টফোনেই মিলবে সঠিক উত্তর...

কতদিন পর্যন্ত এই পরিষেবা বন্ধ থাকবে তা এখনও স্পষ্ট করে জানানো হয়নি। তবে জানানো হয়েছে, আমরা কথা দিচ্ছি, দ্রুত ফের কাজে ফেরার।  আমাজন ইন্ডিয়ার প্যান্ট্রি সার্ভিস-এ যারা রোজকার জিনিস সরবরাহ করে থাকেন, তারাও দেশের কয়েকটি শহরে কাজ করছেন না। তবে আমাজন এখনও পর্যন্ত কোনও নির্দেশিকা জারি করেননি। ইতিমধ্যেই লকডাউনের পর থেকেই দেশ জুড়েই শহরের বড় বড় শহরে মুদির দোকানে দীর্ঘ লাইন দেখা গিয়েছে। করোনা আতঙ্কের মধ্যে সাধারণ মানুষ কেনাকাটা করছেন দীর্ঘক্ষণ লাইন দিয়ে। যদিও সরকারের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের যোগান কোনওভাবেই কমবে না। সকলেই খাবার দাবার, নিত্যপ্রয়োজনীয জিনিস  পাবেন।

আরও পড়ুন-লকডাউনের জন্য পার্লারে যেতে পারছেন না, ঘরেই ত্বকের যত্ন নিন এইভাবে...

ফ্লিপকার্টের মতোই একই পথেই হেঁটেছে বিগ বাস্কেট। বন্ধ করেছে  তাদের সমস্ত পরিষেবা। তবে পরিষেবা সম্পূর্ণ বন্ধ না করলেও অত্যাবশ্যক পণ্য ছাড়া আর কোনও জিনিসের ডেলিভারি দেবে না আমাজন। কোম্পানির তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, অতি প্রয়োজনীয় জিনিসই একমাত্র ক্রেতারা এখন অর্ডার দিতে পারবেন। লকডাউনের সময় খাবারের প্যাকেট, চিকিৎসার সামগ্রী ইত্যাদি পণ্যই আপাতত সরবরাহ করবে এই ই-কমার্স সাইট।