সারা দেশে মহিলাদের মধ্যে এই সমস্যা তীব্রভাবে বেড়ে চলেছে। রক্ত লোহিত রক্তকণিকা বা হিমোগ্লোবিনের পরিমান কমে গেল তাকেই অ্যানিমিয়া বলা হয়। শরীর দুর্বল হয়ে পড়ার অন্যতম লক্ষণ হল রক্তাল্পতা। মহিলাদের মধ্যে তুলনামূলক ভাবে এই রোগের শিকার হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। শরীরে আয়রনের অভাবে নানান সমস্যা দেখা দিতে পারে। তবে প্রথম থেকেই চিকিৎসা না করলে বড় আকার নিতে পারে রক্তাল্পতা। ব্যস্ততার চাপে শরীরের সঠিক খেয়াল ঠিক করে অনেকেই রাখতে পারেন না। কিন্তু এটা ভুলে গেলে চলবে না শরীর ঠিকমতো সুস্থ্য রাখতে না পারলে কাজ করাও অসম্ভব হয়ে উঠবে। 

আরও পড়ুন- পুষ্টিগুণে ভরা এই চাল কেন রাখবেন পাতে, জেনে নিন এর উপকারিতা

শরীরে আয়রনের অভাব হলে রক্তাল্পাতা, ক্লান্তি বোধ, অবসাদ নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে। তবে শরীরে রক্তের অভাব হয়েছে কিনা তা বুঝতেই অনেকটা দেরি করে ফেলেন অনেকে। সাধারণত রক্ত পরীক্ষারে মাধ্যমে এই অসুস্থতা ধরা পড়ে। কিন্তু কয়েকটি উপসর্গ এমন আছে যেগুলি দেখে বোঝা যায় যে শরীরে রক্ত  কমে গিয়েছে। জেনে নেওয়া যাক কোন লক্ষণগুলি দেখে বুঝবেন শরীরে আয়রনের ঘাটতি হয়েছে- 

আরও পড়ুন- নিয়ন্ত্রণে রাখুন ডায়াবেটিস, ভরসা রাখুন এই খাবারগুলির উপর

রক্তাল্পতার অন্যতম লক্ষণ হল ত্বকের রঙ ফ্যাকাশে হয়ে যাওয়া। রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা কমে গেলেই ত্বক সাদা ফ্যাকাশে হয়ে যেতে থাকে। হাতের তালু, চোখের ভিতর ও নখের রঙ যদি অতিরিক্ত সাদা হতে থাকে বুঝবেন হিমোগ্লোবিনের অভাব রয়েছে। শীঘ্রই চিকিৎসকের কাছে যান। রক্তাল্পতার কারণেই শরীর দুর্বল হয়ে পড়ে। এর থেকে হঠাৎ করে কোনও বিষয়ে উদ্বেগ হওয়া বা অবসাদে ভোগা ইত্যাদিও হতে পারে। 

আরও পড়ুন- ঘুমের মধ্যেই মারাত্মক পেশির টান, অবহেলা নয় নজরে রাখুন এই বিষয়গুলি

তাই এই সব উপসর্গ দেখলে সময় নষ্ট না করে পরামর্শ নিন চিকিৎসকের। দিনে প্রত্যেকের ৫০ টা করে চুল পড়া স্বাভাবিক। কিন্তু এর থেকে বেশি চুল পড়তে থাকলেই বুঝবেন শরীরে আয়রনের ঘাটতি রয়েছে। তাই দেরী না করে চিকিৎসকের কাছে যান। আপনি কি অল্প কাজ করেই হাঁপিয়ে যান! বেশি হাঁটচলা বা দৌড়দৌড়ি করলেই কি হাঁপ ধরে! এটিও রক্তাল্পতার একটি লক্ষণ। তাই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে দেরী করবেন না। ফুসফুসের সমস্যাতেও এই লক্ষণ দেখা যায়।