মহামারি করোনা যেমন একধারে বহু মানুষের কাজ কেড়ে নিয়েছে, একইভাবে এই মহামারিতে রাতারাতি পসার বাড়িয়েছেন বেশ কিছু ব্যবসায়ী। করোনা আবহে রাতারাতি দাম বেড়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজার, মাস্ক-এর। ঠিক এমন এক পরিস্থিতিতে সারা বিশ্বের মানুষকে চমকে দিয়ে প্রকাশ্যে আসল বিশ্বের সবচেয়ে দামি মাস্ক। 

ইজরায়েল-এর এক নামকরা গহনা প্রস্তুতকারক সংস্থা বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল করোনার মাস্ক তৈরি করেছে। এটির জন্য প্রায় ১১ কোটি টাকা ব্যয় হয়। এই মাস্কটি এক মার্কিন ক্রেতার জন্য এই মাস্কটি ডিজাইন করেছে সংস্থা। এই মাস্কটি ১৮ ক্যারেট সোনা দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। এটিতে ৩৬০০ টি কালো এবং সাদা হীরা রয়েছে। জানা গিয়েছে অক্টোবর মাসে এই মাস্কটি বাজারে প্রকাশ্যে আসবে।

ইজরায়েল সংস্থা ইউভেলের মালিক, ইস্ক লেভি যিনি এই মাস্ক প্রস্তুত করছেন, তিনি জানিয়েছেন, এই মাস্কে একটি এন -৯৯ ফিল্টার রয়েছে যা ভাইরাসের কণা থেকে রক্ষা করে। তিনি আরও জানিয়েছেন, 'আমরা যে গ্রাহকদের জন্য মাস্ক তৈরি করছি তিনি হলেন চীনা শিল্প সংগ্রহকারী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একজন বাসিন্দা। পাশাপাশি তিনি আরও জানিয়েছেন, এই মহামারির সময়ে এই মাস্কের বরাত মেলায় বর্তে গিয়েছেন তাঁর কর্মীরা।' মোট ২৫ জন শিল্পীর একটি দল মিলে এই বিশেষ মাস্ক প্রস্তুতের কাজ করছে। 

এই মাস্ক প্রস্তুত করতে প্রথমে একটি সোনার কাঠামো প্রস্তুত করা হয়েছে। তাপ উপর থেকে ছাঁচে ফেলে এই মাস্ক তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। মাস্কটির ওজন প্রায় ২৭০ গ্রাম যা সার্জিক্যাল মাস্কের প্রায় ১০০ গুণ। লেভি ক্রেতার নাম জানাতে অস্বীকার করলেও জানিয়েছেন যে, এই মাস্কের বরাত দিয়েছেন আমেরিকায় থাকা একজন চিনা ব্যবসায়ী দিয়েছেন। প্রসঙ্গত, এর আগে ভারতেও এক ব্যক্তি সোনার মাস্ক গড়িয়ে ছিলেন, যা বেশ ভাইরাল হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়।