১৯৪৭  সালের আগে, পাকিস্তানে হিন্দু জনসংখ্যা ছিল উল্লেখযোগ্য।তাই স্বাভাবিকভাবেই সেখানকার লোকেরা বিভিন্ন হিন্দু দেবদেবীর উদ্দেশ্যে বেশ কয়েকটি সুন্দর মন্দির নির্মাণ করেছিলেন। যা আজ  দুর্ভাগ্যক্রমে  ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে । তবে পাকিস্তানের চকওয়ালের কাটাসরাজের শিব মন্দির আজও এক বিস্ময়।  প্রাচীন এই মন্দিরটি শিবকে উত্সর্গ  করে মহাভারতের সময় থেকেই রয়েছে।আজ্ঞ্যে হ্যাঁ,পাণ্ডবদের সাথে এই মন্দিরটির সংযোগও রয়েছে।লোকমতে,পান্ডবরা নাকি এই স্থানে তাদের ১৪ বছরের নির্বাসনের মধ্যে ৪ বছরই কাটিয়েছিলেন ।  

এই মন্দির প্রাঙ্গনে একটি পুকুর রয়েছে। অবশ্য এর পিছনের অংশটি আরও আকর্ষণীয়। কথিত আছে যে শিব যখন সতীকে হারিয়েছিলেন তখন এই স্থানেই  তিনি কেঁদেছিলেন।তারই চোখের জলে পুরো পুকুরটি তৈরি হয়েছিল।যদিও মন্দিরটি আজ ধ্বংসস্তূপে দাঁড়িয়ে আছে,কিন্তু পুকুরটি আজও অত্যন্ত শ্রদ্ধার। বিশেষত এই পুকুরে স্নান করা একজন ব্যক্তির সমস্ত পাপ ধুয়ে দেবে বলে বিশ্বাস করা হয়।

সবার মতে,শিবের অবিশ্বাস্য প্রেমের কারনেই পুকুরটি এখন আস্তে আস্তে হারিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু  দশ বছর আগে এই অঞ্চলে বড় সিমেন্ট কারখানাগুলি স্থানান্তরিত হয়েছিল। কর্মকর্তারা বলছেন যে,পুকুরের ভূগর্ভস্থ জল ২২ ফুট থেকে এখন তিন ফুট পর্যন্ত তলিয়ে গেছে।